করোনা আতঙ্কে থরহরিকম্প গোটা রাজ্য। লকডাউনের আগে রায়গঞ্জের বিভিন্ন বাজারে মানুষের ভিড় তো ছিলই, সোমবার শহরের একটি মিষ্টি দোকানেও খদ্দেরদের সামলাতে হিমশিম খেলেন কর্মীরা।

আরও পড়ুন: ঘরে বসেই শিক্ষার্থীরা পেল মিড ডে মিল, রাজ্য সরকারের নির্দেশে সোমবার থেকেই কাজ শুরু

আর ঝুঁকি নয়, এবার সতর্ক হওয়াই শ্রেয়। 'জনতা কার্ফু'-এর পর সোমবার বিকেল থেকে কলকাতা-সহ গোটা রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করল সরকার। বাদ নেই উত্তর দিনাজপুরও।  শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত দোকান-পাঠ বন্ধ থাকবে জেলার সর্বত্রই। পচে নষ্ট হয়ে যাবে কয়েক হাজার টাকা মিষ্টিও। তাই হরেক রকমের মিষ্টি অর্ধেক দামে কার্যত বিলিয়ে দিলেন রায়গঞ্জ শহরের এক ব্যবসায়ী। শুধু কি তাই! একটি মিষ্টি কিনলে আবার ক্রেতাদের আরও একটি মিষ্টি বিনামূল্যে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। অভিনব এই 'অফার'-এর কথা চাউর হতে সময় লাগেনি। ব্যস আর কী চাই! সোমবার সকালে থেকে দলে দলে মিষ্টিপ্রেমী ভিড় জমান দোকান। চোখের নিমিষে শেষ হয়ে যায় দোকানের সব মিষ্টি।  খুশি দোকানের মালিক ও কর্মচারীরাও।

আরও পড়ুন: মুখে মাস্ক দিয়ে মাংস কিনতে ব্যস্ত মানুষ, জনতা কার্ফুতেও ভীড় ঘাটালের দোকানে

এদিকে সোমবার বিকেল থেকে লকডাউন সফল করতে রায়গঞ্জে পথে নামে পুলিশ। লকডাউন লাগু চালু হওয়ার পরেও যাঁরা পথে ছিলেন, তাঁদের ঘরে ফেরানোর জন্য নাকা চেকিং চলে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে। জেলায় অবশ্য এখনও পর্যন্ত একজনও করোনা আক্রান্তের হদিশ মেলেনি। দিন কয়েক আগে এক মহিলা সন্দেহজনক উপসর্গ নিয়ে রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।  তবে তাঁর শরীরের ভাইরাসের সন্ধান মে্লেনি।