রাজ্যে করোনা সংক্রমণ রুখতে জেলায় জেলায় কোয়ারেনটাইন সেন্টার তৈরি পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য সরকার। অন্য জেলার মতো বীরভূমের পাড়ুইয়ে তালিবপুর গ্রামের হাইস্কুলের হোস্টেলে সেন্টার তৈরির ব্যবস্থা করা হয়। তাকে ঘিরে শনিবার রাতে রণক্ষেত্রের আকার নেয় গোটা এলাকা। দুই গোষ্ঠীর দফায় দফায় সংঘর্ষে চলে বোমা ও গুলি। বোমার আঘাতে এক ব্যক্তি নিহত হন। আহত হয়েছেন আরও একজন।

পুলিশ সূত্রে খবর, কোয়ারেনটাইন সেন্টার তৈরিরর স্থানীয় গ্রামবাসীদের সঙ্গে বৈঠক করে জেলা প্রশাসন। বৈঠকে কোয়ারেনটাইন সেন্টার তৈরিতে আপত্তি জানায় গ্রামবাসীদের একাংশ। শনিবারও বৈঠকের কথা থাকলেও আপত্তি জানানো গ্রামবাসীদের বিরোধিতায় তা ভেস্তে যায়। তাঁদের দাবি, হোস্টেলে কোয়ারেনটাইন সেন্টার তৈরি হলে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা রয়েছে। তীব্র বিরোধিতার কারণে বৈঠক ছাড়াই ফিরতে হয় প্রশাসনের কর্মকর্তাদের। এরপরই রাত ৯ টা নাগাদ গন্ডগোলের সূত্রপাত হয় বলে পুলিশের সূত্রে খবর। স্থানীয় গ্রামবাসীদের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয় এলাকা। চলে বোমাগুলি। বোমার আঘাতে একজনের মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুনঃ করোনা পরিস্থিতিতে পরামর্শ চেয়েই কি প্রণবকে ফোন, মমতা, সনিয়ার সঙ্গে আলোচনা মোদীর

আও পড়ুনঃ দিদির অনুপ্রেরণায় কাজ করছেন দিলীপ, বিজেপি সভাপতির মুখে একী কথা

আরও পড়ুনঃ করোনার প্রভাবে এতটাই পরিবর্তন পাকিস্তানের, ভারতীয় বিমানের চালকদের প্রশংসা

নিহত ব্যক্তির দেহ সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে মৃতের দেহের ময়নাতদন্ত হবে। নতুন করে গন্ডগোল এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করেছে জেলা প্রশাসন। এই ঘটনার পরই গ্রামে রয়েছে আতঙ্ক। এমনিতেই রাজনৈতিক এললাকা দখল ঘিরে মাঝে মাঝেই উত্তাল হয়ে ওঠে পাড়ুই। কিন্তু  এই মহামারীর মধ্যেই দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে রীতিমত উদ্বেদ ছড়িয়ে গোটা এলাকায়।