২০০১ সালের ১১ ই সেপ্টেম্বর, হাইজ্যাক করা বিমান নিয়ে নিউইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের জোড়া টাওয়ার-এ হামলা চালিয়েছিল আল কায়দা। নিউইয়র্ক শহরের ইতিহাসে এর থেকে বড় বিপর্যয় আর কোনও ঘটনাকে ধরা হয় না। ওইদিন শুদু নিউইয়র্কেরই ২,৭৫৩ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছিল এবং সামগ্রিকভাবে ২,৯৭৭ জন মারা যান। কিন্তু, করোনার ত্রাস, সেই সন্ত্রাসবাদী হামলাকেও ছাপিয়ে গেল। মঙ্গলবার নিউইয়র্কে হাইজাম্প দিল করোনা। আর তাতেই মৃত্য়ুমিছিলে ছাপিয়ে গেল ৯/১১-কেও।

মঙ্গলবার নিউইয়র্ক শহরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘন্টায় শুধুমাত্র এই শহরেই ৭৩১ জন কোভিড-১৯ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর থেকে, একদিনে কোনও একটি শহরে এতজনের মৃত্যু হয়নি। এর ফলে এখন নিউইয়র্ক শহরের মোট কোভিড-১৯ জনিত কারণে মৃত্যুর সংখ্যা পৌঁছল ৩,২০২-এ।

নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুওমো জানিয়েছেন, নিউইয়র্ক প্রদেশে মোট মৃতের সংখ্যাটা প্রায় ৫,৫০০। তবে তাঁর দাবি এতে আতঙ্কের কিছু নেই। কারণ মৃত্যুর সংখ্যা একদিনে এতটা বাড়লেও, নতুন করে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া মানুষের সংখ্যা ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে। তিনি আরও দাবি করেছেন, এতে করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য গৃহীত সরকারি পদক্ষেপগুলি সফল হওয়ার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

করোনা রোধে গোটা ভারতে 'ভিলওয়ারা মডেল' চাইছে মোদী সরকার, কীভাবে কাজ করে এই ব্যবস্থা

কত ডিগ্রি তাপমাত্রায় জব্দ হতে পারে করোনাভাইরাস, কী বলছেন চিকিৎসকরা

 

১৪ এপ্রিলের পর জোড়া কৌশলে চলবে করোনা-যুদ্ধ, জেনে নিন মোদী সরকারের পরিকল্পনা

কিন্তু, তাতে পুরোপুরি নিশ্চিন্ত হতে পারছেন শহরবাসী। মঙ্গলবার ভারতীয় সময় রাত ১০টা পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোট কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৩,৮৫,৮৩৮ এবং মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ১২,২২৭-এ।