করোনাভাইরাসে সংক্রমণের কারণে ভয়ঙ্কর দুর্ভিক্ষের মুখোমুখি হতে চলেছে গোটা বিশ্ব। উল্কা গতিতে বাড়তে চলছে ক্ষুধার্ত মানুষের সংখ্যা। উদ্বেগ প্রকাশ করে জানিয়েছে রাষ্ট্র সংঘ। ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রামের প্রধান ডেভিড ব্যাসিল জানিয়েছেন এখনই ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হলে আগামী দিনে আরও ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে বিশ্বকে। এমন দশটি দেশ রয়েছে যারা এই মুহূর্তে আবহাওয়ার পরিবর্তনের কারণে কৃষিকাজে তেমন সুবিধে করতে পারছে না। পাশাপাশি অর্থনৈতিক সংকটে ভুগছে। মহামারী সেই সব দেশের জন্য আগামীতে খাদ্য সংকট আরও বাড়িয়ে দেবে বলেই জানিয়েছে রাষ্ট্র সংঘ। বিশ্বের ৩০টি উন্নয়নশীল দেশ এই সংকটের মুখোমুখি হতে চলেছে। 

এখনই বিশ্বের প্রায়  ১৩ কোটি ৫০লক্ষ মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নেই। আগামী দিনে সেই সংখ্যা বেড়ে ২০ কোটি ৫০ লক্ষ হতে পারে বলেই আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে রাষ্ট্র সংঘের তরফ থেকে।  

খাদ্য সংকট নিয়ে রাষ্ট্র সংঘের সর্বশেষ তালিকায় নাম রয়েছে, ইয়েমেন, কঙ্গো, আফগানিস্তান, ভেনেজুয়েলা, ইথিওপিয়া, দক্ষিণ সুদান, সুদান, সিরিয়া নাইজেরিয়া ও হাইতির। এই সব দেশেগুলিতে খাদ্য সংকট আরও ভয়ঙ্কর আকার নেবে বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞরা। একটি তথ্যে দেখা যাচ্ছে দক্ষিণ সুদানের ৬১ শতাংশ মানুষই চরম ভাবে খাদ্য সংকটে ভুগছে।  করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দিনমজুরদের জন্যও খাদ্য সংকট বয়ে নিয়ে আসছে বলেও দাবি করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ লড়াই সাফল্য এনেছে, যুদ্ধ জয়ের পর বললেন 'টিচার আম্মা' ...

আরও পড়ুনঃ আজ রাতে কি হাসপাতালে মোমবাতি জ্বলবে, সকালেই চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা অমিত শাহর ...
ব্যাসিলের কথায় পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রথম বিশ্বের দেশগুলি যত তাড়াতাড়ি ব্যবস্থা নেবে ততই ভালো হবে। কারণ তাঁর কথায় আর বেশি সময় নেই। অল্প কয়েক মাসের মধ্যেই আমাদের সামনে তীব্র খাদ্য সংকটের মুখোমুখি হতে হবে। তবে পরিস্থিতি মোকাবিলার একটাই মাত্র উপায় রয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন পূর্ব অভিজ্ঞতা দিয়ে তিনি দেখেছেন, সবকটি দেশ একত্রিত হয়ে এক ও অভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে এগিয়ে গেলে পরিস্থিতি কিছুটা হলেও সামাল দেওয়া যাবে। 

রাষ্ট্র সংঘের কথায় দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর বিশ্ব এর আগে আর কোনও দিনও এত ভয়ঙ্কর খাদ্য সংকটের মুখোমুখি হয়নি। রাষ্ট্র সংঘের হিসেব অনুয়ায়ী এই মুহূর্তেই যদি খাবার সরবরাহ করা না হয় তাহলে কিছু দিনের মধ্যেই অনাহারে  ৩ কোটি মানুষের মৃত্যু হতে পারে। কিন্তু করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে বর্তমানে গোটা বিশ্বই আর্থিক সংকটে ভুগছে। তাই পরিস্থিতি মোকাবিলা খুব একটা সহজ নয় বলেও জানিয়েছে রাষ্ট্র সংঘ।