করোনা মোকাবিলায় স্তব্ধ শহরের জনজীবন। গোটা শহর জুড়েই নিস্তব্ধতা বিরাজমান। শুনসান পথঘাট। নেই কোনও গাড়ির হর্নের শব্দ।  তাল কেটেছে তিলোত্তমার। ঘরবন্দি বহু মানুষ। এই অবস্থায় মঙ্গলবার পর্যন্ত দিব্য চলল একটি সুইমিং পুল। দিনরাত ঘর বন্দি থেকে যাঁরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য দৃঢ় সংকল্প করেছিলেন তাঁরাই ভাঙলেন তাঁদের প্রতিজ্ঞা। আর লক ডাউনের মধ্যেও সুইমিং পুল চালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠল মহারাজ ঘরনীর বিরুদ্ধে। ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়ের পৈত্রিক ভিটে বাড়িতে রয়েছে এই সুইমিং পুল। যেটি চলে তাঁর নাচের স্কুলের নামে। 

কিন্তু কেন লক ডাউনের মধ্যেও সুইমিং পুল চালিয়ে গেলেন তিনি? না এই প্রশ্নের কোনও উত্তর দিতে পারেনি ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়। তবে এই খবর জানাজানি হতেই টনক নড়ে কলকাতা পুরসভার। স্থানীয় কাউন্সিলর সুব্রত পালায় কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য আধিকারিকদের ডোনার কাছে পাঠান। স্বাস্থ্য আধিকারিকরা ডোনার সঙ্গে কথা বলেন। অবিলম্ব সুইমিং পুল বন্ধ করে দেওয়ার প্রস্তাব দেন। পুল বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে ডোনাও পুরসভায় আধিকারিকদের আশ্বস্ত করেন। 

আরও পড়ুনঃ করোনাভাইরাসের প্রকোপ, পিছিয়ে গেল রাজ্যসভার নির্বাচনও

আরও পড়ুনঃ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি ঘূর্ণাবর্ত, কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনা

আরও পড়ুনঃ পারলে চিতাভষ্মটুকু রাখবেন, আমেরিকা থেকে কাতর আবেদন করোনায় মৃতের ছেলের

গত রবিবার প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সারা দিয়ে গোটা দেশই পালন করেছিল জনতা কারফু। তারপর সোমবার থেকে শুরু হয়েছে লক ডাউন। সামাজিক দূরত্ব বড়াতেই এই সিদ্ধান্ত রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, মূলত হাত অথবা স্পর্শ থেকেই ছড়িয়ে পড়ে এই চরম ছোঁয়াচে ভাইরাস। তাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে লক ডাইনের পথে হেঁটেছে ভারত সহ কলকাতা। এই পরিস্থিতিতে ডোনা গঙ্গোপাধ্যায় সুইমিং পুল চালিয়ে যাওয়ায় সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে সেই পুলে আসা লোকজনদের মধ্যে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন নানা বয়সের মহিলা ও পুরুষরা এই পুলে আসেন নিত্যদিন। জমায়েতও হয়। তাই পুলটি খোলা থাকায় রীতিমত উদ্বেগে প্রশাসন। 

জনতা কারফুকে সমর্থন জানিয়ে ঘরবন্দি ছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ছবি পোস্ট করে বাকিদেরও উৎসাহিত করেছেন ঘরবন্দি থাকতে। কিন্তু শহরে লোক ডাউন চলার সময় বেহাল মত গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় তাঁর স্ত্রী কী করে সুইমিং পুল খুলে রেখে ছিলেন তাই নিয়েই উঠছে প্রশ্ন। পাশাপাশি প্রশ্ন উঠছে সৌরভ ঘরনীর সচেতনতা নিয়ে।