ডিসেম্বর থেকে শুরু। প্রথম একের পর এক চিনে মানুষের মৃত্যুর দিকে নজর ছিল গোটা বিশ্ববাসীর। করোনা ভাইরাস ক্রমেই গ্রাস করছিল চিনকে। ভয়াবহ দৃশ্যের সাক্ষী থাকা বিভিন্ন দ্শ-মহাদেশ তখনও অনুমান করে উঠতে পারেনি একদিন এই একই ছবি ধরা দেবে আমাদের দেশে। একের থেকে তিন, তিনের থেকে নয়, মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়তে থাকা মারণ ভাইরাসের কবলে এখন ২০০ টিরও বেশি দেশ।

আরও পড়ুনঃ আয়ুর্বেদিক ওষুধেই জব্দ করোনা, বেঙ্গালুরুর ডাক্তারের হাতে সুস্থ হলেন প্রিন্স চার্লস

এই বিপদ ঠেকাতে উপার একাই, বজায় রাখতে হবে সামাজিক দুরত্ব। লক ডাউনই একমাত্র উপায়। ইতিমধ্যেই ভয়াবহ ছবি উঠে েসেছে ইতালি, আমেরিকা থেকে। প্রতিদিন মানুষের মৃত্যু হচ্ছে গড়ে ৮০০ করে। ঠেকানো যাচ্ছে না পরিস্থিতি। সময় থাকতেই নিতে হবে ব্যবস্থা, নচেত অকালেই প্রাণ খুইতে হবে লাখ লাখ মানুষকে। দ্বিতীয় স্তরেই লক ডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভারত। তার প্রশংসাও করেছে হু।

আরও পড়ুনঃ করোনা মোকাবিলায় লকডাউন মেনেই স্বাভাবিক জীবন, কী করবেন রইল তারই টিপস

লক ডাউনে দিনের পর দিন আটকে রয়েছে হাজার হাজার মানুষ। কীভাবে সময় কাটাবেন তাঁরা, উপায় বাতলাল এবার গুগল ডুডল। বাড়িতে বসে ফোনে কথা বলতে বলুন, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখুন, কিন্তু মানসিক ভাবে কাছে থাকতে হবে প্রতিটা মানুষের। বই পড়া যেতে পারে। বাড়িতেই শরীর চর্চা করলে অনেক বেশি তা সতেজ থাকবে এবং এক ঘেয়েমি কাটবে। গান শোনা যেতে পারে, গান করা যেতে পারে। পাশাপাশি টিভি দেখা, ওয়েব সিরিজ দেখা, ঘরে থেকে সকলের সঙ্গে গল্প করা, খেলা সব কিছুই করা যেতে পারে। কিন্তু করা যা যাবে না তা হল বাড়ির বাইরে পা বাড়ানো। তবেই সম্ভব এই যুদ্ধে জয় করা। 

করোনা মোকাবিলায় রক্ষা করুন নিজেকে, মেনে চলুন 'হু' এর পরামর্শ

সাবধান, করোনা আতঙ্কের মধ্যে এই কাজ করলেই হতে পারে জেল

কী করে করোনার হাত থেকে রক্ষা করবেন আপনার বাড়ির বয়স্ক সদস্যদের, রইল তারই টিপস

শরীরে কীভাবে থাবা বসায় করোনা, জানালেন বিশেষজ্ঞরা