আতঙ্কের আর এক নাম করোনা। একের পর এক শহরে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে এই রোগ। এই করোনা আতঙ্ক এখন ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। মুহূর্তের মধ্যে একজনের থেকে আরেকজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। ইতিমধ্যেই করোনা আতঙ্কে জেরবার বিশ্ববাসী । এহেন পরিস্থিতিতে মাস্ক, স্যানিটাইজারেই ভরসা রেখেছেন প্রত্যেকে।মানুষের সংস্পর্শেই সংক্রমিত হচ্ছে এই করোনা ভাইরাস । মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের সঙ্গেই ছড়িয়ে যাচ্ছে এই রোগের জীবানু।যত দিন যাচ্ছে ততই যেন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে ভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা। সারা দেশে  মহামারির আকার ধারণ করেছে এই করোনা ভাইরাস। ইতিমধ্যেই বিশ্বের বহু প্রান্তের মানুষ স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে যাচ্ছেন। আবার অনেকেই আছেন সতর্কতার তোয়াক্কা না করে সেই নিয়ম ভেঙে ফেলেছেন। তাদের আটকাতে কড়া ব্যবস্থা নিতে চলেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক।

আরও পড়ুুন-করোনা আতঙ্কে গৃহবন্দি সমস্ত গ্রাহক, জিও নিয়ে এল অতিরিক্ত কলের সুবিধা...

আরও পড়ুন-রেলেও পৌঁছে গেল করোনাভাইরাস, রাজধানী থেকে নামিয়ে দেওয়া হল 'ছাপ মারা' দম্পতিকে...

হোম কোয়ারেন্টাইন ভাঙলে  ৬ মাস পর্যন্ত জেলও হতে পারে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, কারাবাসই শুধু নয় ১০০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানাও হতে পারে। যারা এই মুহূর্তে বিদেশ থেকে ফিরেছেন তাদের অন্তত ১৪ দিনের হোম আইসোলেশন থাকার পরামর্শ দিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। কিন্তু সেই উপদেশকে অগ্রাহ্য করে অনেকেই বিদেশ থেকে এদেশে এসে ইচ্ছামতো ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ইতিমধ্যে কলকাতাতেও সেই প্রমাণ দিয়েছে দুই যুবক। এবার এই প্রবণতা রুখতেই কড়া ব্যবস্থা নিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

আরও পড়ুন-৩০ লিটার মদ খেয়ে মাতাল হয়ে তান্ডব একপাল হাতির, হতবাক নেট দুনিয়া...

রাজ্য মন্ত্রকের এক আধিকারিক জানিয়েছেন,  আমরা  রাজ্যগুলিকে এই নিয়ে কড়া পদক্ষেপ নিতে বলেছি।  করোনা ভাইরাস আটকানোর জন্যই এই ব্যবস্থা। এই ভাইরাসকে আটকানোর জন্য কোয়ারেন্টাইন ভীষণ জরুরি। বিশেষ করে সামাজিক দূরত্বও বজায় রাখা দরকার। ইতিমধ্যেই করোনার দাপটে একের পর এক ছবির শ্যুটিং বন্ধ হচ্ছে। থিয়েটার থেকে সিনেমাহল সবই প্রায় দর্শকশূন্য। ইতিমধ্যে মুম্বইতে জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা। করোনা আক্রান্তের মধ্যেই ইতিমধ্যেই মুক্তি পিছিয়েছে 'সূর্যবংশী', 'জার্সি', 'ব্রহ্মাস্ত্র'-এর মতো একাধিক ছবি।  এমনকী বক্স অফিসের লোকসানের মুখে রয়েছে সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি 'আংরেজি মিডিয়াম'।