উত্তর ২৪ পরগনা বনগাঁর পেট্রাপোল স্থল বন্দরে করোনার কারণে যে সমস্ত ট্রাকচালক বাংলাদেশ যান তাদেরকে পিপিই কিট পরতে হচ্ছে । প্রতিদিন বাংলাদেশ গিয়ে জিনিস খালি করে ফাঁকা গাড়ি নিয়ে ভারতে ফিরে আসছেন তাঁরা। এখানেই বেঁধেছে বিপত্তি। তাঁদের পরিধেয় পিপিই কিট নির্দিষ্ট স্থানে রাখার জন্য ড্রাম রাখা আছে। কিন্তু ড্রাইভাররা অসচেতনতা বসত পেট্রাপোল থেকে বনগাঁ রাস্তার যেখানে সেখানে পিপিই কিট খুলে ফেলে দিচ্ছেন। 

স্থানীয় মানুষের অভিযোগ পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে সপ্তাহে একদিন পরিষ্কার করতে আসলেও দীর্ঘ সময় পিপিই কিট এরকম ভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকার কারণে এলাকায় সংক্রমনের আশংকা বাড়ছে। প্রশাসনের বিষয়টিকে ঠিক করে দেখা উচিৎ। 

এই বিষয়ে ছয়ঘড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান প্রসেনজিৎ ঘোষ রাস্তার পাশে পিপিই কিট ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকার কথা স্বীকার করে নিয়ে জানিয়েছেন , পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে পিপিই কিট সাফাই করা হয়।

তিনি আরও জানান সাফাই করতে গিয়ে এক সাফাই কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ড্রাইভাররা বাংলাদেশ থেকে ভারতে প্রবেশের মুখে পিপিই কিট নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলছেন না। এবিষয়ে নজরদারি চালানোর কথা বিএসএফের। সেটাও ঠিক মতো হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। 

তাঁর দাবি বিএসএফের নজরদারির অভাবেই গাড়ি চালকরা যেখানে সেখানে পিপিই কিট খুলে ফেলে দিতে পারছে। যদিও বিএসএফ এর তরফ থেকে এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি