কাল থেকেই আবার শুরু হয়ে যাবে বৈরিতা। তার আগে রবিবার একটি ব্যতিক্রমী দিন। যেদিন পাকিস্তান ও বাংলাদেশের সমর্থকরা দারুণভাবে সমর্থন জানালেন ভারতকে। এমনকী এক সমর্থককে গলায় পাকিস্তানের পতাকা জড়িয়ে ভারতের জাতীয় সঙ্গীতও গাইতে দেখা গেল। আর এই নিয়ে প্রশ্ন করতেই কোহলির মুখে মুচকি হাসি দেখা গেল।

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ওঠার দৌড়ে রয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা - তিন দেশই। কাঁটা একটাই, ইংল্যান্ড। ভারত যদি রবিবার ইংল্য়ান্ডকে হারিয়ে দেয় তবেই এই তিন দলের সামনে সুযোগ আসবে। নাহলে ইংল্যান্ডের সামনে শেষ চারের দরজা অনেকটাই খুলে যাবে। বাকি দলগুলির সুযোগ প্রায় শেষ হয়ে যাবে।

ম্যাচের আগে নাসের হুসেন পাক সমর্খকদের তাঁরা ভারতকে সমর্থন করবেন কিনা জিজ্ঞেস করেছিলেন। বেশিরভাগই বলেছেন অবশ্যই এদিন তাঁরা ভারতকে সমর্থন করবেন। একজন উত্তর হিসেবে ভারতের জাতীয় সঙ্গীত লিখে দিয়েছেন। এর আগে এশিয়া কাপ ২০১৯৮-তে আদিল তাজ বলে এক পাক সমর্থককে দেখা গিয়েছিল দুবাইতে স্টেডিয়ামে দাঁড়িয়ে জাতীয় সঙ্গীত গাইতে।  

এদিন এই নিয়ে ভারত অধিনায়ক বিরাটকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, বাইরে কি হচ্ছে তার খবর তিনি রাখছেন না। তবে সঙ্গে সঙ্গে এটাও জানিয়েছেন, 'এ এক বিরল ঘটনা'।