বিশ্বকাপে দ্বিতীয় ম্যাচেই বড় ধাক্কা খেয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। বুড়ো আঙুল ভেঙে প্রায় টুর্নামেন্টেরই বাইরে চলে গিয়েছেন শিখর ধাওয়ান। আঙুলের হাড়ে চিড় ধরেছে। যা সাতে অন্তত তিন সপ্তাহ তো লাগবেই। এই অবস্থায় কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছে না টিম ইন্ডিয়া। তাই তড়িঘড়ি লন্ডনে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে তরুণ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্থকে। যাঁকে দুদিন আগেই নিজের উত্তরাধিকার হিসেবে চিহ্নিত করেছেন যুবরাজ সিং।

এখনই ধাওয়ানকে পুরোপুরি বিশ্বকাপ সমীকরণের বাইরে ফেলে দেওয়া হচ্ছে না। তবে তাঁর চোটের হাল যেই রকম, তাতে অন্তত তিন সপ্তাহ মাঠের বাইরে থাকতেই হবে। অর্থাত রাউন্ড রবিন লিগের নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড, এবং  বাংলাদেশ ম্যাচে তাঁকে পাওয়া যাবে না এটা নিশ্চিত। একেবারে শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তাঁকে ফের পেতে পারে ভারতীয় দল। তবে সবটাই নির্ভর করছে তিনি কতটা চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন তার উপর।

ভারতের সামনে এখন বড় প্রশ্ন তারা ধাওয়ানকে নিয়ে ধৈর্য ধরবে নাকি, তাঁর বিকল্প হিসেবে পন্থের নাম ঘোষণা করা হবে? কারণ ধাওয়া বদলে একবার পন্থের নাম বিকল্প ক্রিকেটার হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়ে গেলে, পরে ধাওয়ান সুস্থ হয়ে গেলেও আর দলে ফিরতে পারব না। দলের আর কোনও ক্রিকেটার চোট পেলে তবেই তিনি সেই ক্ষেত্রে দলে ফেরার সুযোগ পাবেন।

সেই কারণেই পন্থকে এখনই বিকল্প হিসেবে ঘোষণা করা হচ্ছে না। বদলে তাঁকে শিখর ধাওয়ানের 'কভার' হিসেবে লন্ডনে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সরকারি ঘোষণা এখনও করা না হলেও তাঁকে শিখরের বদলে তৈরি রাখা হচ্ছে। কেভিন পিটারসেনও টুইটারে ধাওয়ানের পরিবর্ত হিসেবে পন্থের হয়েই সওয়াল করেছিলেন।

অবসর গ্রহণের দিন তাঁর উত্তরাধিকার হিসেবে ঋষভ পন্থের নামই করেছিলেন যুবরাজ সিং। তিনি বলেন, তাঁর থেকেও ভাল খেলার ক্ষমতা রয়েছে পন্থের। পন্থকে চলতি বিশ্বকাপের ভারতীয় দলে দেখতে চেয়েছিলেন তাঁর আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির দুই কোচ রিকি পন্টিং ও সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ও।