বিশ্বকাপের ৩২ নম্বর ম্যাচে দারুণ শুরু করেও শেষটা ভাল করতে পারল না অস্ট্রেলিয়া। অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকাপে দ্বিতীয় শতরান পেলেন অ্যারন ফিঞ্চ (১০০)। শুরুতে তাঁকে ভাল সঙ্গ দিয়েছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার (৫৩)-ও। কিন্তু, তারপর থেকে একটিও জুটি গড়তে পারলেন না অজি ব্যাটসম্যানরা। ভাল প্রত্যাবর্তন করলেন ইংরেজ বোলাররা। আর তাতেই সাড়ে তিনশ' রান তোলার সম্ভাবনা দেখিয়েও অস্ট্রেলিয়া মাত্র ২৮৫/৭ রানেই আটকে গেল। আদিল রশিদ ছাড়া প্রত্যেক ইংরেজ বোলারই উইকেট পেলেন।

বিশ্বকাপের ৩২ নম্বর ম্যাচে দারুণ শুরু করেও শেষটা ভাল করতে পারল না অস্ট্রেলিয়া। অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকাপে দ্বিতীয় শতরান পেলেন অ্যারন ফিঞ্চ (১০০)। শুরুতে তাঁকে ভাল সঙ্গ দিয়েছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার (৫৩)-ও। কিন্তু, তারপর থেকে একটিও জুটি গড়তে পারলেন না অজি ব্যাটসম্যানরা। ভাল প্রত্যাবর্তন করলেন ইংরেজ বোলাররা। আর তাতেই সাড়ে তিনশ' রান তোলার সম্ভাবনা দেখিয়েও অস্ট্রেলিয়া মাত্র ২৮৫/৭ রানেই আটকে গেল। আদিল রশিদ ছাড়া প্রত্যেক ইংরেজ বোলারই উইকেট পেলেন।

আরও পড়ুন - এমনকী সচিনেরও নেই ছাড়! ২৪ বছর ক্রিকেট সেবার পর জুটল তীব্র অপমান

আরও পড়ুন - বিশ্বকাপে সুখবর কোহলিদের জন্য, দূর হল বড় চিন্তা, দেখুন ভিডিও

আরও পড়ুন - মুম্বইয়ে হঠাত অসুস্থ ব্রায়ান লারা! তড়িঘড়ি ভর্তি করা হল হাসপাতালে

সত্যি বলতে লর্ডসে পিচ কিন্তু বোলারদের বেশ সহযোগিতা করেছে। কিন্তু শুরুতে ইংরেজ বোলাররা একেবারেই বল জায়গায় রাখতে পারছিলেন না। একেবারে দেখে শুনে প্রায় টেস্টের ধাঁচে খেলছিলেন ফিঞ্চ ও ওয়ার্নার। প্রথম উইকেট জুটিতে ২২ ওভারে ১২৩ রান তুলেছিলেন তাঁরা। মইন আলির বলে ওয়ার্নার ফিরলেও খোয়াজা (২৩) ও ফিঞ্চ (১০০) আরও একটি ৫০ রানের জুটি গড়েন।

কিন্তু, এরপর থেকে রানের গতি বাড়াতে যেতেই বিপদে পড়েন অজি ব্য়াটাররা। শেষ ৬ উইকেট হারাল মাত্র ৮৬ রানে। স্মিথ (৩৮) ও কেরি (৩৮) রানের গতি খানিক বাড়াতে পারলেও রানটাকে ৩০০-এর বেশি তুলতে পারলেন না।

তবে এই রানটা লর্ডসের পিচে ইংল্যান্ডের কাছে বড় হয়ে দেখা দিতে পারে।