টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর থেকে গোটা ম্যাচে একবারও মনে হয়নি ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিততে পারে ওয়েস্টইন্ডিজ। প্রথমে মেঘলা আবহাওয়ায় ইংরেজ জোরে বোলারদের সামলাতে ব্যর্থ হলেন ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানরা। আর তারপর চোটের কারণে জেসন রয় ও অইন মর্গানের মতো দুই গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটসম্যান না খেলতে পারলেও, জো রুটের শতরানের উপর ভর করে ১৭ ওভার বাকি থাকতে সহজেই ৮ উইকেটে ম্যাচটি জিতে নিল ইংল্যান্ড। ফলে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করে যে ক্রিকেট উন্মাদনা তৈরি করেছিল ক্যারিবিয়ান দল, তা অনেকটাই ঝিমিয়ে গেল।

ইংরেজিতে রুট কথার অর্থ শিকড়। এদিন ব্য়াটে বলে দুর্দান্ত পারফর্ম করলেন রুট। তিনি নিয়মিত বোলার নন। কিন্তু এদিন মেঘলা আবহাওয়ার সুযোগ নিতে অলরাউন্ডার মইন আলিকে বসিয়ে পাঁচ জোরে বোলার খেলায় ইংল্যান্ড। তাই বাধ্য হয়েই রুটকে দিয়ে কয়েক ওভার করাতে গিয়েছিলেন অইন মর্গান। কিন্তু তিনিই গোটা ম্যাচে ওয়েস্টইন্ডিজের পক্ষে একমাত্র বলার মতো বিষয় নিকোলাস পুরান (৬৩) ও শিমরণ হেটমায়ার (৩৯)-এর ৮৯ রানের চতুর্থ উইকেটে জুটিকে ভাঙেন তিনি। হেটমায়ার ছাড়াও ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক জেসন হোল্ডার (৯)-এর উইকেটও নেন তিনি। এরপর আবার ব্য়াট হাতে ওপেন করতে নেমে ৯৪ বলে ১০০ রান করে অপরাজিত থাকলেন তিনি। অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের জোরে তিনিই হলেন ম্যাচের সেরা।

তবে আরেক শিকড়ও ভোগালেন এদিন ওয়েস্টইন্ডিজ দলকে। তিনি জোফ্রা আর্চার। যাঁর শিকড় ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জেই। চলতি বিশ্বকাপে ওয়েস্টইন্ডিজের বোলিং স্ট্র্যাটেজি হল শর্টবল। কিন্তু এদিন সেটাই বুমেরাং হয়ে গেল তাঁদের পক্ষে। বাউন্সারের অস্ত্রেই নিকোলাস পুরানের গুরুত্বপূর্ণ উইকেট-সহ তিনটি উইকেট দখল করলেন এই ওয়েস্টইন্ডিজ জাত ইংরেজ বোলার। ক্রিস গেইল (৩৬) ও এভিন লুইস (২) দুজনেই আউট হলেন শর্টবল সামলাতে না পেরেই।

আর অল্প রানের পুঁজি নিয়ে ওয়েস্টইন্ডিজ বোলাররা ইংরেজ ব্যাটসম্যানদের আক্রমণ করতে গেলে হিতে বিপরীত হল। শর্টবলের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত টেকনিক রয়েছে বেয়ারস্টো (৪৫), জো রুটদের। ক্য়ারিবিয়ান শর্ট বলে তাঁরা বিব্রত তো হলেনই না, বরং শর্ট বলই যেন তাঁদের রান তাড়া করার কাটা আরও সহজ করে দিল।

তবে ইংরেজ ব্যাটসম্যানরা শুরুতে যে খুব স্বস্তিতে ছিলেন তা নয়। এদিন বোলিং-এর সময়ই চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন তাদের দুই গুরুত্বপূর্ণ ব্য়াটসম্য়ান   জেসন রয় ও অইন মর্গান। রয়ের হ্যামস্ট্রিং-এর পেশিতে টান লাগে, আর ইংরেজ অধিনায়ক পিঠের ব্যথার কারণে এদিন ব্য়াট করতে নামতে পারেননি। নিয়মিত ওপেনার জেসন রয়ের বদলে গোড়াপত্তনের জায়িত্ব ছিল জো রুটের উপর। একবারও তাঁকে অস্বস্তিতে মনে হয়নি। আবার তিন নম্বরে নামা ক্রিস ওকস-ও ৫৪ বলে ৪০ রান করে যান।

ওয়েস্টইন্ডিজ যেভাবে শুরু করেছিল, তাতে তাদেরকেই বিশ্বকাপের কালো ঘোড়া ধরা হচ্ছিল। কিন্তু ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচে তাদের পারফরম্যান্স একেবারে সাধারণ স্তরে নেমে গেল। ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলেন না ক্যারিবিয়ানরা।