বিশ্বকাপের আর মাত্র ৫দিন বাকি। একটি জমজমাট প্রতিযোগিতা দেখার অপেক্ষায় এখন টানটা উত্তেজনা ক্রিকেট বিশ্বে। তবে বিশ্বকাপের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ম্যাচ যে ১৬ মে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে হতে চলেছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। বিশ্বজয়ের মঞ্চে আরও একবার মুখোমুখি হবে ভারত ও পাকিস্তান ক্রিকেট দল। কিন্তু তার আগে আরও একবার এই ম্যাচ হওয়া না হওয়া নিয়ে বিতর্ক খুঁচিয়ে তোলা হল।

ক্রিকেট-প্রেমীরা ভারত-পাক ম্যাচের রোমাঞ্চ উপভোগ করার জন্য একেবারে তৈরি হয়ে গেলেও দুই দেশের মধ্যে রাজৈতিক উত্তেজনার আঁচ এখনও কমেনি। পুলওয়ামার বর্বরোচিত জঙ্গি হামলা এবং তারপর বালাকোটে ভারতের জবাব - এরপরই বিশ্বকাপে ভারতের পাকিস্তান ম্য়াচ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। খেলা উচিত হবে কি হবে না - এই প্রশ্নে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে গিয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেট মহল।

সদ্য উত্তর দিল্লি কেন্দ্র থেকে বিজেপির টিকিটে সাংসদ হওয়া প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর সেই সময় জানিয়েছিলেন, ২ পয়েন্ট হারাতে হলেও ভারতের বিশ্বকাপে পাকিস্তান ম্য়াচ বয়কট করা উচিত। এতদিন এই বিষয়ে মুখ না খুললেও সম্প্রপতি এক সাবাদিক এই নিয়ে প্রশ করায় উত্তর দিলেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার শাহিদ আফ্রিদি।

প্রাক্তন পাক অলরাউন্ডার গম্ভীরের মতামতের বিষয়ে বলেছেন, 'কোনও বুদ্ধিমান ব্যক্তি কি এমন কথা বলতে পারে বলে মনে হয়? কোনও শিক্ষিত মানুষ কি এভাবে কথা বলে?'

গৌতম গম্বীর ও শাহিদ আফ্রিদি, দুই দেশের এই দুই প্রাক্তন ক্রিকেটারের মধ্যে কোনও দিনই কোনও বাব-ভালোবাসা ছিল বলে শোনা যায়নি। ক্রিকেট মাঠেও তাঁদের একাধকবার উত্তপ্ত বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়তে দেখা গিয়েছে। আবার সম্প্রতি আত্মজীবনীতেও গম্ভীরকে রেহাই দেননি আফ্রিদি। যা নিয়ে দুই জনের টুইট-যুদ্ধ বহুদূর গড়িয়েছিল। রাজনৈতিক মতামত নিয়েও সোশ্যাল মিডিয়ায় তর্কে লিপ্ত হতে দেখা গিয়েছে আফ্রিদি ও গম্ভীরকে। এইবার ভারত-পাক ম্যাচ খেলা না খেলা নিয়েও আরও একবার লেগে গেল গম্ভীর বনাম আফ্রিদি দ্বন্দ্ব। এবার গম্ভীর কি জবাব দেন সেটাই দেখার।