কুড়ি হাজারের টিকিট বিক্রি হচ্ছে প্রায় নব্বই হাজারে। ১৭ হাজারের টিকিটের দাম বেড়ে হয়েছে দেড় লক্ষ টাকা। কালো বাজার নয়, আইসিসি অনুমোদিত এজেন্টরাই এভাবে কয়েকগুন দামে ক্রিকেট বিশ্বকাপের টিকিট বিক্রি করছে বলে অভিযোগ। 
একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি দৈনিকের খবর অনুযায়ী, আইসিসি অনুমোদিত টিকিট বিক্রির দায়িত্বে থাকা একটি সংস্থাই এমন চড়া দামে বিশ্বকাপের টিকিট বিক্রি করছে। অভিযুক্ত ওই এজেন্সিটির সদর দফতর আবার কলকাতাতেই। 

জানা গিয়েছে, গ্রুপ লিগে ইংল্যান্ড বনাম ভারত ম্যাচের টিকিটের দাম আইসিসি-র পক্ষ থেকে রাখা হয়েছিল ২৩৫ পাউন্ড। ভারতীয় মুদ্রায় যার দাম ২০,৬৬৮ টাকা। সেই টিকিটই এখন ৯৯৫ পাউন্ডে বিক্রি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ। ভারতীয় মুদ্রায় যার দাম দাঁড়াচ্ছে ৮৭,৫১০ টাকা। 

লর্ডসে ফাইনাল ম্যাচের জন্য সিলভার এবং ব্রোঞ্জ ক্যাটাগরির টিকিটের দাম যথাক্রমে রাখা হয়েছিল ১৯৫ পাউন্ড (১৭,১৫০ টাকা) এবং ৯৫ পাউন্ড (৮,৩৫৫ টাকা)। সেই টিকিটের দাম বেড়ে এখন বিক্রি হয়েছে ১৭০০ পাউন্ড (দেড় লক্ষ টাকা) এবং ১৫০০ পাউন্ড (১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা)। 

ওই সংবাদপত্রের পক্ষ থেকেই ক্রেতা হিসেবে পরিচয় দিয়ে কলকাতার ওই টিকিট বিক্রয়কারী সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে ভারতের ম্যাচের টিকিটের দাম জানতে চাওয়া হয়েছিল। তারই জবাবে ই- মেল করে বিভিন্ন ম্যাচের টিকিটের দামের এমনই তালিকা ওই সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। 

পরে ওই সংবাদপত্রের পক্ষ থেকে আইসিসি কর্তাদের কাছেও বিষয়টি নিয়ে মৌখিকভাবে জানতে হয় যে আইসিসি নির্ধারিত দামের থেকে বেশি মূল্যে এভাবে টিকিট বিক্রি করা যায় কি না। আইসিসি সূত্রে অবশ্য স্পষ্টই দাবি করা হয়েছে, কোনও সংস্থাই এভাবে দাম বাড়িয়ে টিকিট বিক্রি করতে পারে না। ওই এজেন্সি সংবাদপত্রকে যে মেল পাঠিয়েছে, তার বিস্তারিত তথ্য সংবাদপত্রের কাছে চাওয়া হয় আইসিসি-র তরফে। সংবাদপত্রের তরফে বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থাকে সেই মেল পাঠিয়েও দেওয়া হয়েছে।

আইসিসি-র পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, কোনও ট্রাভেল এজেন্টকে বিশ্বকাপের টিকিট বেচতে গেলে তা ইংল্যান্ডে গিয়ে থাকা, খাওয়া এবং যাতায়াতের প্যাকেজ ট্যুরের সঙ্গে বিক্রি করতে হবে। 

তবে কলকাতার ওই এজেন্সির তরফে টিকিটের দামের যে তালিকা দেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে দর্শকের হোটেলে থাকা বা যাতায়াতের কোনও উল্লেখই নেই। শুধুমাত্র জুনের ১৩ তারিখে বহু প্রতীক্ষিত ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের টিকিটের সঙ্গে এই ধরনের কিছু সুযোগ সুবিধা দেওয়া হয়েছে। সেই টিকিটের দাম রাখা হয়েছে ভারতীয় মুদ্রায় দেড় লক্ষ থেকে ১ লক্ষ ৬৬ হাজার টাকার মধ্য।