বিশ্বকাপের আগে ভারতের শেষ গা-ঘামানো ম্যাচে টসে জিতল প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ। কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে ভারতকেই প্রথমে ব্য়াট করতে ডাকলেন মাশরাফে মোর্তাজা। কার্ডিফের আকাশ সকালের দিকে পরিষ্কার থাকলেও, খেলা শুরুর আগেই ফের মেঘলা হয়ে এসেছে। এই আবহাওয়ায় বাংলাদেশি জোরে বেলাররা সুবিধা পেতে পারেন। তবে এদিনও ভারতীয় দলে নেই কেদার যাদব।

বাংলাদেশী অদিনায়ক মাশরাফে মোর্তাজা জানিয়েছেন গত কয়েকদিন বষ্টির জন্য উইকেট ঢাকা ছিল। কাজেই বল দারুণ সুইং হোয়ার সম্ভাবনা। কার্ডিফেই রবিবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ খেবলার কথা ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু বৃষ্টিতে সেই ম্যাচ ধুয়ে যায়। তাই এদিন স্কোয়াডে থাকা ১৫ জনকেই খেলাতে চায় বাংলাদেশ। ভারত টুর্নামেন্টের অন্যতম সেরা দল বলে মেনে নিয়েছেন মোর্তাজা। কাজেই প্রতিযোগিতা বেশ কঠিন হবে।

অপর দিকে বিরাট কোহলি জানিয়েছেন তাঁরাও আগে বল করতে চেয়েছিলেন। প্রথম প্রস্তুতি ম্য়াচে প্রায় একই পরিবেশে নিজেদেরকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলবেন বলেই প্রথমে ব্যাট করেছিলেন। তাতে এই অবস্থায় কী করা উটিত তা সমন্পর্কে একটা ধারণা তৈরি হয়েছে।

তবে শেষ ম্যাচে ৬ উইকেটে হার নিয়ে মোটেই ভাবিত নন বিরাট কোহলি। তিনি জানিয়েছেন ইংল্যান্ডে আসার মাত্র ২দিনের মাথাতেই তাঁদের ওই ম্য়াচ খেলতে হয়েছে। সেই সঙ্গে গা ঘামানো ম্যাচগুলি তে তাঁরা ১০০ শতাংশ দিয়ে খেসলছেনও না, বিশ্বকাপের জন্য মজুত রাখছেন। কাজেই ওই হারের কোনও গুরুত্ব নেই। ভারত অধিনায়ক আরও জানিয়েছেন ভারত যেহেতু ৫ জুন বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করছে, অন্যান্য় দলগুলির তুলনায় প্রস্তুতির জন্য আরও বেশি সময় পাচ্ছেন।

তবে এধিনের ম্যাচেও খেলতে পারছেন না কেদার যাদব। সোমবার তাঁকে অনুশীলনে ব্যাচট করতে দেখা গিয়েছিল। কিন্তু তাঁর কাঁধের আঘাত এখনও সাড়েনি বলে জানিয়েছেন বিরাট কোহলি। অর্থাত দলের ছয় নম্বর ব্য়াটসম্যান বিশ্বকাপের আগে সেই ভাবে ম্য়াচ অনুশীলন করতে পারলেন না। এটা কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে চিন্তার কারণ হতে পারে।

তবে আরেক চোট পাওয়া ক্রিকেটার, চার নম্বরে ব্যাটসম্যান বিজয় শঙ্করের হাতের চোট পুরোপুরি সেড়ে গিয়েছেন। তিনি এদিন খেলছেন দলে। অর্থাত কেদার ছাড়া বাকি সব ক্রিকেটারকেই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে ব্যবহার করা হবে।

এদিনের ম্যাচের দুই দল:

ভারত (১৪ জনের ): বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা, বিজয় শঙ্কর, এমএস ধোনি (উইকেটরক্ষক), হার্দিক পাণ্ডিয়া, কুলদীপ যাদব, মহম্মদ শামি, যুজবেন্দ্র চাহাল, যশপ্রীত বুমরা, কেএল রাহুল, দিনেশ কার্তিক(উইকেটরক্ষক), রবীন্দ্র জাদেজা, ও ভুবনেশ্বর কুমার।

বাংলাদেশ (১৫ জনের): তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদুল্লাহ, সাব্বির রহমান, মহম্মদ সইফুদ্দিন, মাশরাফি মোর্তাজা (অধিনায়ক), মেহেদি হাসান, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, মহম্মদ মিঠুন, আবু জায়েদ, মোসাদ্দেক হোসেন ।