চলতি বছরের শুরুতে ভারতের সীমিত ওভারের ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় চিন্তা ছিল চার নম্বর ব্য়াটম্য়ান এবং মহেন্দ্র সিং ধোনির অফ ফর্ম। মঙ্গলবার বাংলাদেশের বিরুদ্ধে কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করার ঠিক আগের ম্য়াচেই এই দুই প্রশ্নেরই সাফ জবাব মিলল। এদিনও ২০ ওভারের মধ্যেই ১০০ রানের মধ্যেই ভারতের ৪ উইকেট পড়ে গিয়েছিল। সেখান থেকে কেএল রাহুল (১০৮) ও মহেন্দ্র সিং ধোনি (১১৩) টানলেন ভারতের ইনিংসকে। ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ভারত ৩৫৯ রান তুলল।

বলা হয় সকাল দেখে বোঝা যায় দিন কেমন যাবে। কিন্তু ভারতের ইনিংসটার ক্ষেত্রে কিন্তু এই কথা খাটছে না। দারুণ শুরু করেছিলেন দুই ভারতীয় গোড়াপত্তনকারী জোরে বোলার মুস্তাফিজুর ও মোর্তাজা। তৃতীয় ওভারেই মুস্তাফিজুরের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে গিয়েছিলেন শিখর (১)। রোহিত শর্মাও কখনই ছন্দে ছিলেন না। ১৪তম ওভারে রুবেলের বলে ৪২ বলে ১৯ করে তিনি আউট হন।

Innings Break!

Centuries from @klrahul11 & @msdhoni guide #TeamIndia to a stupendous total of 359/7 after 50 overs in the warm-up game against Bangladesh.

Over to the bowling unit https://t.co/NBwUD3K9Yd #CWC19 pic.twitter.com/ZfKhuUT2JX

— BCCI (@BCCI) May 28, 2019

 

এখান থেকে জুটি বেঁধেছিলেন কেএল রাহুল ও বারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। দারুণ ছন্দে ব্য়াট করথিলেন বিরাট। কিন্তু ১৯তম ওভারে সইফুদ্দিনের বলে ৪৭ রানে ফের ভিতরে ঢুকে আসা বলে আউট হলেন তিনি। বিজয় শঙ্কর এদিন খেললেও শরীরের অনেকটা বাইরের বলে চালাতে গিয়ে মাত্র ২ করেই আউট হন তিনি। ফলে ২২ ওভারের শেষে ১০২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ধুকছিল ভারত।

 

এখান থেকে ধীরে সুস্থে শুরু করেছিলেন ধোনি ও রাহুল। তারপর ধীরে ধীরে গিয়ার তুলতে থাকেন তাঁরা। ৯৩ টি বল খেলে ৩টি ছয় ও ১২টি চার মেরে শতরান সম্পূর্ণ করেন রাহুল। তাঁর এদিনের ইনিংসের পর আর ভারতের চার নম্বর ব্য়াটসম্যান নি.য়ে প্রশ্ন থাকা উচিত নয়। শেষ পর্যন্ত ৯৮ বলে ১০৮ রান করে সাব্বিরের বলে আউট হন কেএল রাহুল।