পাকিস্তান ম্যাচে হ্যামস্ট্রিং-এ চোট পেয়েছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার। মাত্র ৩ ওভার বল করতে না করতেই উঠে যেতে হয়েছিল তাঁকে। পরের আফগানিস্তান ম্যাচে প্রথম একাদশে খেলেন মহম্মদ শামি। আর চলতি বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেই তিনি শেষ ওভারে হ্যাটট্রিক সহ মোট ৪ উইকেট নেন। ফলে আগামী ম্যাচে ভারতের সামনে নতুন প্রশ্ন তৈরি হয়েছে, কে খেলবেন - ভুবি না শামি?

হ্যাটট্রিক-সহ চার উইকেট নিয়ে প্রথম ম্যাচেই ভারতীয় ভক্তদের মন জিতে নিয়েছেন শামি। অনেকেই বলছেন চোট পেয়ে ভুবনেশ্বর কুমারের দলের বাইরে যাওয়াটা কাল হল। কারণ শামি যা বল করেছেন তারপর তাঁকে বসানো যাবে না। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে দুর্দান্ত বল করলেও উইকেট শিকারের দক্ষতায় তিনি শামির থেকে কিছুটা হলেও পিছিয়ে আছেন।

বিস্ময়করভাবে সচিনের ভোট কিন্তু পেলেন ভুবি। বিশ্বকাপের সরকারি সম্প্রচারকারী চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে মাস্টার ব্লাস্টার জানিয়েছেন, ভুবি সুস্থ থাকলে ভারতের অবশ্যই তাঁকেই খেলানো উচিত। এর আগে আফগানিস্তান ম্যাচের পর সচিন জানিয়েছিলেন শামিকে তিনি আগেই বলেছিলেন ধৈর্য ধরতে, বিশ্বকাপে সুযোগ ঠিক পাবেন। তবে সঙ্গে এও জানিয়েছিলেন ভুবি চোট পান, এমনটা কখনই চাননি তিনি।  

এবার আরও একবার শামির বদলে ভুবির হয়েই সওয়াল করলেন তিনি। তাঁর স্পষ্ট যুক্তি ভুবি দুদিকে বল সুইং করাতে পারেন। সামনে ওয়েস্টইন্ডিজ দল। যাদের বাহাতে বেশ কিছু বড় শট খেলার মতো ব্যাটার রয়েছেন। সচিন মনে করছেন ভুবির সুইং ওয়েস্টইন্ডিজের বড় শট খেলতে পারদর্শী টপ অর্ডার ব্য়াটিং-কে ঝামেলায় ফেলবে।

পাক-ম্যাচে চোট পাওযার পর বিরাট কোহলি জানিয়েছিলেন ভুবির মাঠে ফিরতে সম্ভবত দুই-তিনটি ম্যাচ লাগবে। সাউদাম্পটনে আফগানিস্তান ম্যাচের দিন দেখা গিয়েছিল তাঁর সিঁড়ি ভাঙতে কষ্ট হচ্ছে। তবে ম্যাঞ্চেস্টারে মঙ্গলবার ভুবনেশ্বর কুমার ভারতীয় দলের নেটে বল করেছেন। ভারতীয় বোর্ডের তরফে একটি টুইট করে ভুবনেশ্বরের নেটে বল করার একটি ছবি পোস্ট করা হয়।   

ফলে, পরের ম্যাচের আগে বিরাট কোহলি-রবি শাস্ত্রীর সামনে শামি না ভুবি এই প্রশ্নটা বড় হয়ে উঠতে চলেছে। এখন শামিকে আরেক ম্যাচ সুযোগ দেওয়া হয়, না কি সচিনের পরামর্শ মনেনে নেওয়া হয় সেটাই দেখার।