ইংল্যান্ডকে সেমিফাইনালে তুলতে তাঁকেই সকলে কৃতিত্ব দিচ্ছেন। কিন্তু এহেন জেসন রয় এবার পড়লেন জরিমানার জালে। আম্পায়ারেরর সঙ্গে অযথা তর্ক করার অভিযোগ ওঠে জেসনের বিরুদ্ধে। এরপরই ম্যাচ রেফারি দেওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতে তাঁকে 'আর্টিকল ২.৮ আইসিসি কোড অফ কন্ডাক্ট ফর প্লেয়ারস অ্যান্ড প্লেয়ার সাপোর্ট পারসনেল' অনুসারে নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগ করা হয়। এবং তার মোট ম্যাচ ফি'স এর ৩০%  জরিমানা করা হয়। এছাড়াও  জেসন রয়-এর শৃঙ্খলা জনিত রেকর্ড ২ টো ডিমেরিট পয়েন্টস যোগ করা হয়। তবে পরে জেসন রয় তার ভুল স্বীকার করে। 

 বৃহস্পতিবার বার্মিংহাম-এর এজবাস্টনে বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনাল খেলে আস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। টসে জিতে শুরুতে ব্যাটিং করা সত্ত্বেও ৪৯ ওভারে মাত্র ২২৩ রানে অল আউট হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড ৩২ ওভার ১ বলেই জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয়। মাত্র ২টি উইকেট হারিয়ে এই রান সংগ্রহ করে নেয় ব্রিটিশরা। জেসন রয় ৬৫ বলে ৮৫ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন। সকলেই জেসনের খেলার বাহবা দেন। এবারের বিশ্বকাপে জেসন রয়-কে ইংল্যান্ড টিমের ডার্ক হর্স হিসাবে ডাকা হচ্ছে। 

২০ নম্বর ওভারে অজি বোলার প্যাট কামিন্স-এর দ্বারা 'কট বিহাইন্ড' হন জেসন। সেখানেই শুরু হয় বচসা। আম্পায়ার তাঁকে আউট দিলে তা মানতে রাজি ছিলেন না জেসন। অনিচ্ছা থাকলেও শেষে আম্পায়ার এর সিদ্ধান্ত মেনে নিতে বাধ্য হন। তবে এই ঘটনা চোখ এড়িয়ে যায়নি আইসিসি-র ডিসিপ্লিনারি কমিটির প্রতিনিধিদের। তবে পরে জেসন রয় তার ভুল স্বীকার করে নেওয়ায় আইসিসি এই নিয়ে কোনও সালিশি সভা করেনি। ১৪ই জুলাই, লর্ডস-এ হতে চলেছে নিউজিল্যান্ড বনাম ইংল্যান্ড-এর মধ্যে বিশ্বকাপের ফাইনাল। ওই দিনই ক্রিকেট বিশ্ব এই নতুন এক চ্যাম্পিয়নকে পাবে। কারণ, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড এর আগে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ফাইনালে উঠলেও চ্যাম্পিয়ন হয়নি।