সারা বিশ্ব জুড়ে করোনা ভাইরাসের প্রকোপের ফলে পিছিয়ে গেছে বা বাতিল হয়েছে অনেক ক্রীড়া প্রতিযোগিতাই। এশিয়া কাপ ২০২০ ও সেই রাস্তায় হাটবে কিনা তাই নিয়ে সোমবার বৈঠক আয়োজিত হয়েছিল এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের তরফে। কিন্তু এসিসি-র এক্সিকিউটিভ বোর্ডের মিটিংয়েও এই বছরের এশিয়া কাপের ভবিষ্যৎ নিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত হল না। এশিয়া কাপ স্থগিত হওয়া নিয়েও তৈরি হয়েছে জল্পনা। এ বারের এশিয়া কাপ প্রতিযোগিতাটি আয়োজিত হওয়ার কথা ছিল সেপ্টেম্বর মাসে। আয়োজক দেশ হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল পাকিস্তানের ওপর। যার ফলে সংশয় তৈরি হয়েছিল ভারতের টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ নিয়ে। কারণ একটা ব্যাপার খুবই পরিস্কার যে পাকিস্তানের মাটিতে টুর্নামেন্ট আয়োজিত হলে সেখানে খেলতে যাবে না ভারত।

আরও পড়ুনঃকরোনা আবহে ক্রিকেটে একাধিক নয়া নিয়ম জারি করল আইসিসি,জেনে নিন আপনিও

তাই এবারের এশিয়া কাপ টি২০ পাকিস্তানে হওয়ার কথা থাকলেও তা কোনও নিরপেক্ষ ভেন্যুতে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। যদিও সেই  নিয়েও কম জলঘোলা হয়নি অতীতে। তবে এই মুহুর্তে দাঁড়িয়ে এসিসি অপেক্ষা করছে আইসিসির টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের জন্য। অক্টোবর থেকে অজিদের ঘরের মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন হওয়া নিয়েও তৈরি হয়েছে একগাদা সংশয়। আঁচ করা হচ্ছে যে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে কোন সিদ্ধান্ত নিলেই এসিসি তার ওপর ভিত্তি করে এশিয়া কাপ নিয়ে নিজেদের অবস্থান জানাবে।

আরও পড়ুনঃকীভাবে দলে সুযোগ পেয়েছিলেন ধোনি, রহস্যফাঁস করলেন প্রাক্তন জাতীয় নির্বাচক

আরও পড়ুনঃঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ খেলতে ইংল্যান্ড পৌছল ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল

গতকাল এসিসি বোর্ড মিটিংয়ে নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। ভারতের তরফ থেকেও বৈঠকটি যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছিল কারণ এটিই ছিল প্রথম আন্তর্জাতিক বৈঠক যেখানে উপস্থিত ছিলেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও সচিব জয় শাহ। এসিসির সিনিয়র অফিশিয়াল বলেন, আলোচনায় আপাতত এশিয়া কাপ স্থগিত রাখার কথা বলা হলেও সেটা পুরোপুরি নিশ্চিত হয়নি এবং অন্য দিনে আবার আর একটি বৈঠকের কথাও ভাবা হচ্ছে।