আগামী ৮ জুলাই ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাতে চলেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। ওই দিন শুরু হতে চলেছে করোনা বা লকডাউন পরবর্তী সময়ে প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সিরিজ। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তিন টেস্টের সিরিজ খেলবে ক্যারেবিয়ানরা। করোনা মহামারীর জেরে গত মার্চ মাস থেকে বিশ্ব জুড়ে স্থগিত হয়ে গিয়েছিল সমস্ত ধরনের স্পোর্টিং ইভেন্ট। ফের কবে ক্রিকেট শুরু হবে তা নিয়ে সংশয়ে ছিলেন তাবড় তাবড় বিশেষজ্ঞরা। এই পরিস্থিতিতেই   ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড বায়ো-সিকিওর আবহে প্রস্তাবিত টেস্ট সিরিজ খেলার কথা ঘোষণা করে। সেই সিরিজ খেলতে মঙ্গলবার ইংল্যান্ডে পৌছল জেসন হোল্ডারের নেতৃত্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল।

 

 

আরও পড়ুনঃ১১ জুন ফিরছে লা-লিগা,চিনে নিন লিগের ইতিহাসে ১১ জন সর্বোচ্চ গোলদাতাকে

মোট ১৪ জন ক্রিকেটারের পাশাপাশি ১১ জন রিজার্ভ ক্রিকেটারকেও ইংল্যান্ডে পাঠিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোর্ড। বায়ো-সিকিওর পরিবেশে খেলা হবে বলেই বাইরের কেউ ক্রিকেটারদের সংস্পর্শে আসতে পারবেন না। তাই নেট বোলারের ভূমিকা পালন করা ছাড়াও কেউ চোট পেলে রিজার্ভ ক্রিকেটাররাই সেই খামতি পূরণ করবে বলে জানিয়েছে ক্যারেবিয়ান বোর্ডের কর্তারা। আলাদা আলাদা বিমানে ক্রিকেটারদের একত্রিত করার পর সোমবার রাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল অ্যান্টিগা থেকে চাটার্ড বিমানে ইংল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। মঙ্গলবার সকালেই তারা ম্যাঞ্চেস্টারে পৌঁছয়। ইংল্যান্ডে পৌছানোর পর তাদের আলাদা আলাদা বাসে দলে ভাগ করে নিয়ে যাওয়া হয় কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে।

 

 

আরও পড়ুনঃ'স্টোকসের কেরিয়ার শেষ করে দেবে ধোনি'

আরও পড়ুনঃবিরাটদের বিরুদ্ধে স্লেজিং করতে চাই না,হঠাৎ কেন এই সিদ্ধান্ত অজি তারকার

পরবর্তী তিন সপ্তাহ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে কোয়ারান্টাইন ক্যাম্পে থাকবে। গোটা ওয়েস্ট ইন্ডিদ দল। তারপর গোটা দলের করা হবে স্বাস্থ্য পরীক্ষা। পরীক্ষার রিপোর্ট আসার পরই ক্যারিবিয়ান দল প্রথম টেস্টের জন্য হ্যাম্পশায়ারের উদ্দেশ্যে রওনা দেবে। প্লেয়ারদের সুরক্ষার কথা মেনে আইসিসির গাইডলাইন মেনে সমস্ত ব্যবস্থা করছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। প্লেয়ার, কোচ ও সাপোর্টিং স্টাফদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্য নিয়ে কোনওরকম ঝুঁকি নিতে নারাজ ইসিবি কর্তারা। দলের ক্রিকেটারদের রাখা হয়েছে সম্পূর্ণ সুরক্ষা বেষ্টনীতে। ফলে সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে,আগামী মাসের ৮ তারিখের ঐতিহাসিক ম্য়াচে নামবে দুই দল।