ইডেনে পিঙ্ক বল টেস্ট নিয়ে মেতে ছিলেন সবাই। গোলাপি বলের ক্রিকেট আর শহরের গোলাপি রং নিয়েই মেতে ছিলেন সবাই। আর সঙ্গে অবশ্যই ছিল টিম ইন্ডিয়ার দুরন্ত পারফরম্যান্স। কিন্তু সবার আড়ালে এই ইডেনেই একটা পরীক্ষা শুরু করেছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। আর এই পরীক্ষা সম্পর্কে তেমন কোনও তথ্য ছিল না মাঠে উপস্থিত বা টিভির পর্দায় চোখ রাখা দর্শকদের। ইডেনে ভারত-বাংলাদেশ দিন-রাতের পিঙ্ক বল টেস্ট পরীক্ষা মূলক ভাবে করা হয়েছে নো বল ক্যামেরা। বিসিসিআইয়ের যুগ্ম সচিব জয়েশ জর্জ জানিয়েছেন সেই কথা। 

আরও পড়ুন - জ্যাক কালিসের পোস্টে অবাক নেট দুনিয়া, প্রাক্তন অল রাউন্ডার কেন করলেন এমনটা

আগামী আইপিএলে আম্পায়ারদের সাহায্য করার জন্য এই নো বল ক্যামেরার আমদানী করতে চলেছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। গত বছরের আইপিএলে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড লক্ষ্য করেছিল দুই অন ফিল্ড আম্পায়ার নো বল ডাকার ক্ষেত্রে একাধিক ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। যা নিয়ে বিতর্কও কম হয়নি। কোহলি যেমন প্রকাশ্য আম্পায়ারদের নিয়ে সরব হয়েছেন, তেমনই নো বল বিতর্ক উস্কে ডাগ আউট থেকে মাঠে নেমে পরেছিলেন ধোনি। আম্পায়ারদের থেকে চাপ কমাতে আগামী দিনে ২০২০ আইপিএলে নতুন প্রযুক্তি আমদানী করছে বোর্ড। যেখানে শুধুমাত্র নো বল দেখার জন্য থাকবে আলাদা ক্যামেরা ও আম্পায়ার। 

আরও পড়ুন - আইপিএল দল গুলিকে অভিনব বার্তা এনসিএ প্রধান রাহুল দ্রাবিড়ের

আগামী আইপিএলে যাতে ত্রুটি মুক্ত ভাবেই এই প্রযুক্তি ব্যবহার করা যায়, সেটা মাথায় রেখেই  ভারত-বাংলাদেশ পিঙ্ক বল টেস্ট থেকেই এই প্রযুক্তির পরীক্ষা মূলক ব্যবহার শুরু করেছে বিসিসিআই। শুধু ইডেন নয় আগামী দিন, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সিরিজেও পরীক্ষা মূলক ভাবে ব্যবহার করা হবে এই নো বল ক্যামেরার প্রযুক্তি। তারপর এই দুই সিরিজ থেকে পাওয়া সব তথ্য নিয়ে আলোচনায় বসবেন বোর্ড কর্তা ও আইপিএল গভর্নিং কাউন্সের সদস্যরা। সব তথ্য নিয়ে আলোচনার পর আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্যরা সিদ্ধান্ত নেবেন এই প্রস্তুতিতে আরও কী কী উন্নতির প্রয়োজন আছে। আগামী আইপিলের আগেই এই ব্যবস্থাকে সম্পুর্ণ ত্রুটি মুক্ত করতে চাইছে বোর্ড। 

আরও পড়ুন - ভারতের বিরুদ্ধে নামার আগে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে তিন দিনে টেস্ট জয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের