ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক বিষেণ সিং বেদীকে সম্মান জানাতে অনন্য উদ্যোগ নিয়েছিল ডিডিসিএ। দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা সিটেডিয়ামে একটি স্ট্যান্ডের নাম রাখা হয় বিষেণ সিং বেদীর নামে। কিন্তু এবার ডিডিসিএর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে দিল্লির স্টেডিয়াম থেকে তার নামের স্ট্যান্ড সরিয়ে দিতে বললেন বিষেণ সিং বেদী। একইসঙ্গে ডিডিসিএ-র সদস্যপদ ছেড়ে দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক।

এই বিষয়ে ইতিমধ্যেই ডিডিসিএ-কে নিজের চিঠি পাঠিয়ে দিয়েছেন বিষেণ সিং বেদী। কারণ হিসেবে জানিয়েছেন, ডিডিসিএ স্টেডিয়ামে দেশের প্রাক্তন প্রয়াত অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির মূর্তি স্থাপনের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার সঙ্গে সহমত নন তিনি। জেটলি ক্রিকেট প্রশাসন ছাড়ার আগে ১৪ বছর ডিডিসিএ সভাপতি ছিলেন। তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কোটলায় তাঁর ছয় ফুটের মূর্তি স্থাপনের পরিকল্পনা করেছে ক্রিকেট সংস্থা। গত বছর অরুণ জেটলির প্রয়াণের পর ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামের নাম পরিবর্তন করে অরুণ জেটসলির নামে করা হয়। অরুণ জেটলির কাজের সঙ্গে যে বেদীর কোনও দিনই সহমত হতে পারেননি সেই কথাও সকলের জানা। ফলে কোটলায় জেটলির মুর্তি স্থাপনের বিষয়টি মেনে না  নিতে না পারার কারনেই স্ট্যান্ড থেকে তার নাম সরিয় নিতে বলেছেন বেদী।

ডিডিসিএকে দেওয়া চিঠিতে বিষেণ সিং বেদী লিখেছেন,'আমি নিজেকে অসীম সহনশীলতা ও ধৈর্যশীল মানুষ হিসাবে গর্বিত করি। তবে আমার ভয় তা শেষ হয়ে আসছে। ডিডিসিএ আমাকে সত্যই পরীক্ষা করেছে এবং আমাকে এই কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য করেছে। কোনও রাজনৈতিক ব্যক্তিতিবের মূর্তি খেলার মাঠে মেনে নেওয়া যায়না। জেটলি যেভাবে ক্রিকেট প্রশাসনের কাজ চালিয়েছিলেন তাও আমি কোনও দিন মেনে নিতে পারিনি। তবে স্টেডিয়ামের নাম পরিবর্তনও আমার পক্ষে মানা খুব কঠিন হচ্ছিল। তারউপর মূর্তির বিষয়টি মানা অসম্ভব। এখনও ডিডিসিএ যারা চালাচ্ছেন তাদের কাজে সহমত নই আমি।'