করোনা পরিবর্তী সময়ে ক্রিকেটে বল পালিশে লালার ব্যবহার বন্ধ করেছে আইসিসি। সমক্রমণ রুখতে ও ক্রিকেটারদের সুরক্ষার জন্য এই সিদ্ধান্ত নিয়ছেন বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা। কিন্তু লালার ব্যবহার বন্ধ নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্কও। অনেকেই বলছেন বল পালিশে লালা ব্যবহার বন্ধ করলে খেলা আরও বেশি ব্যাটসম্যান কেন্দ্রীক হয়ে উঠবে। বোলারদের কিছুই করার থাকবে না। এমনকী হারিয়ে যেতে পারে রিভার্স সুইংয়ের মত শিল্প। বল পালিশে বিকল্প কোনও পদার্থের দাবিও তুলেছিলেন বেশ কয়েক জন বোলার। কিন্ত তা খারিজ করে দেয় আইসিসি। কিন্তু এবার বোলারদের পক্ষে না আইসিসির পক্ষেই কিছুটা কথা বললেন কিংবদন্তী পেসার মাইকেল হোল্ডিং। তিনি বললেন বল পালিশে থুতুর ব্যবহার বন্ধ করলে খুব একটা সমস্যায় পড়বে না বোলাররা।

আরও পড়ুনঃবিসিসিআইয়ের পাশে মাইকেল হোল্ডিং,বিশ্বকাপ না হলে আইপিএল করার পক্ষে সওয়াল

সোশ্যাল মিডিয়ায় এক লাইভ চ্যাট অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন কিংবদন্তী পেসার। সেখানেই বল পালিশে থুতুর ব্যবহার বন্ধ নিয়ে প্রসঙ্গ উছলে হোল্ডিং বলেন, আমার মনে হয় না লালার ব্যবহার বন্ধ এমন কোনও সমস্যায় ফেলবে। শুধুমাত্র মানিয়ে নিতে কিছুটা সময় লাগবে বলে মনে হয় আমার। বাইশ গজে বল পালিশে লালার ব্যবহারটা অনেকটা সহজাত প্রতিবর্ত ক্রিয়ার মতো।’ হোল্ডিংয়ের কথায় বল পালিশে ঘামও সমান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। বর্ষীয়ান কিংবদন্তি বলছেন, ‘বলে আর্দ্রতা পাওয়া নিয়ে কথা। সেটা তুমি ঘাম থেকেও পর্যাপ্ত পেতে পারো। লালার কোনও প্রয়োজনই নেই। মুখের লালা যা কাজ করে হাতের বা কপালের ঘামও সেই একই কাজ করে। আর কোভিড১৯ ঘাম থেকে সংক্রামিত হয় বলে আমি শুনিনি।’ 

আরও পড়ুনঃসচিনকে আউট করে লাগাতার খুনের হুমকি পেয়েছিলেন এই বোলার

আরও পড়ুনঃদেউলিয়া হতে বসা ক্লাব কিনে নজির গড়লেন এই 'হটেস্ট ফুটবল এজেন্ট'

যদিও সম্প্রতি বোলারদের মুশিকল আসান ক্রিকেট পিচেই লুকিয়ে রয়েছে বলে জানিয়েছিলেন আইসিসির ক্রিকেট কমিটির দায়িত্বে থাকা কিংবদন্তী বোলার অনিল কুম্বলে। অবশ্য বল পালিশে থুতুর ব্যবহার বন্ধ করার রিপোর্ট আইসিসিকে দিয়েছিল কুম্বলের নেতৃত্বাধীন আইসিসি  দ্বারা গঠিত কমিটি। কুম্বলের বলেছিলেন পিচের ঘাস একটু বেশি রেখে বোলারদের সুবিধা দেওয়া যেতে পারে।আর এই নিয়মের ফলে আরও গুরুত্ব বাড়বে স্পিনারদের। কিন্তু মাইকেল হোল্ডিং যেভাবে বললেন, থুতুর পরিবর্তে শুধু ঘাম দিয়েও বল পালিশ করা যেতে পারে। তাতে বোলারদের কোনও সমস্যা হবে না। তাতে একটু হলেও হতাশ বর্তমান যুগের পেস বোলাররা।