করোনা ভাইরাস মহামারীর জেরে বিশ্ব জুড়ে ক্রমেই বাড়ছে উদ্বেগ। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে লাফিয় লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। উদ্বেগ বাড়ছে ক্রীড়া বিশ্বেরও। ফুটবল, ক্রিকেট, হকি, টেনিস থেকে শুরু করে বিশ্বের সব খেলাতেই হচ্ছে কোটি কোটি টাকার ক্ষতি। সকলের একটাই ভাবনা কবে থেকে ফের শুরু হবে খেলা।  ক্রিকেটের ক্ষেত্রেও ছবিটা একই। অনির্দিষ্ট কালের জন্য স্থগিত হয়েছে আইপিএল। বন্ধ আন্তর্জাতিক সব সফর। এমনকী বড়সড় প্রশ্ন চিহ্নের মুখে এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভবিষ্যৎও। তবে পরিস্থিতি যাই হোক পৃথিবীর এই বিপদের দিনে প্লেয়ার ও সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে ক্রিকেট খেলীয় দেশগুলির বোর্ড কর্তা থেকে প্রাক্তন ও বর্তমান প্লেয়াররা। ক্ষতির পরিমাণ জেনেও মানুষের জীবনের দাম তার থেকে অনেক বেশি মানছেন সকলেই। তাই করোনাকে পুরোপুরি নির্মূল না করেই ফের খেলা শুরু করার পক্ষে সওয়াল করলেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার যুবরাজ সিং।

আরও পড়ুনঃজার্সি,প্যাড, গ্লাভস পরে ব্যাট হাতে রেডি ওয়ার্নার, কী করলেন পরিবারের সঙ্গে, দেখুন ভিডিও

প্রাক্তন ভারতীয় অল-রাউন্ডার যুবরাজ সিং  চান ক্রিকেট তখনই শুরু করা হোক যখন গোটা বিশ্ব করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পেয়ে যাবে। কারণ প্লেয়ারের স্বাস্থ্য এবং নিরাপত্তা এই খেলার জন্য সবার আগে। অন্যান্য খেলার ক্ষেত্রে ডোমেস্টিক বা আন্তর্জাতিক স্তরে বন্ধ হয়ে রয়েছে ক্রিকেটও। খালি স্টেডিয়ামে খেলার পক্ষে কেউ থাকলেও আবার অনেকেই এর বিরুদ্ধে। যদিও দ্রুত শুরু করতে হলে খালি স্টেডিয়ামে করার পথেই হাঁটতে হবে সব বোর্ডকে। যুবরাজ এ বিষয়ে জানিয়েছেন,‘আমার ব্যাক্তিগত মত, প্রথমে আমাদের দেশকে বাঁচাতে হবে, বিশ্বকে বাঁচাতে হবে করোনাভাইরাস থেকে।' তিনি আরও বলেন,‘এটা পুরোপুরি নির্মূল হতে হবে বা ৯০-৯৫ শতাংশ চলে যেতে হবে কারণ যদি এটা থেকে যায় আর বাড়তে থাকে তাহলে প্লেয়াররা ভয় পাবে রাস্তায় বেরতে, মাঠে নামতে, ড্রেসিংরুমে যেতে।'

আরও পড়ুনঃকরোনা মোকাবিলায় নিজেদের ব্যাট ও জার্সি নিলামে তোলার সিদ্ধান্ত ভিকে ও এবিডির

আরও পড়ুনঃআরসিবি ছেড়ে যাবেন না কোহলি ও ডিভিলিয়ার্স, ট্রফি জেতাই তাদের স্বপ্ন

২০১১ বিশ্বকাপ হিরো মনে করেন, প্লেয়াররা যখন মাঠে থাকেন তখন তাঁদের উপর এমনিই অনেক চাপ থাকে। সেটার সঙ্গে মানিয়ে নিতে হয় তাঁদের। তার সঙ্গে যদি ভাইরাসের কথা ভাবতে থাকে তাহলে ম্যাচের থেকে ফোকাস সরে যাবে। তাতে খেলা নষ্ট হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা থেকে যায়। আর প্লেয়াররা কোনওবাবেই তাদের একশো শতাংশ দিতে পারবে না।  তিনি বলেন,‘একজন প্লেয়ার হিসেবে, যখন তুমি তোমার দেশ, ক্লাবের প্রতিনিধিত্ব করছ তখন তুমি অনেক ধরনের চাপের মধ্যেই থাকো। তাই যখন খেলতে নামবে তখন কেউ চাইবে না করোনাভাইরাসের আতঙ্ককে সঙ্গে নিয়ে নামতে।' ফলে নানা দিক ও সম্ভাবনার কথা বিচার করেই ভারতের দুই বিশ্বকাপ জয়ের নায়কের করোনা ভাইরাস পুরোপুরি নির্মূল হওয়ার পরই ফের খেলা শুরু করা উচিৎ।