রবিবার অসমের বর্ষাপাড়ার এসিএ স্টেডিয়ামে ভারত বনাম শ্রীলঙ্কা টি২০আই সিরিজের প্রথম ম্যাচ। কিন্তু মালিঙ্গাদের আগেই শনিবার ১৪ মিনিটের সাংবাদিক সম্মেলনে বিরাট কোহলির দিকে ধেয়ে এসেছিল বিষাক্ত ইয়র্কার, 'আপনি কি এনআরসি-কে সমর্থন করেন?' কী জবাব দিলেন বিরাট?

ব্যাটিং-এর মতোই মাঠের বাইরেও কোন বলটা খেলতে হবে আর কোন বলটা ছাড়তে হবে, তার দারুণ পরিচয় দিলেন ভারত অধিনায়ক। মতামত দেওয়ার মতো এনআরসি নিয়ে যথেষ্ট জ্ঞান তাঁর নেই, বলে এই বিষাক্ত প্রশ্ন এড়িয়েই গেলেন তিনি। এনআরসি-কে সমর্থন করা না করা নিয়ে সরাসরি মুখ না খুললেও কোহলি জানান, গুয়াহাটি শহর একেবারে নিরাপদ। তাঁদের কোনও বাধা বা অসুবিধার সম্মুখিন হতে হয়নি। এনআরসি ইস্যু নিয়ে দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো মন্তব্য করতে চান না বলে জানিয়ে দেন। এই বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য জেনে, তার অর্থ বুঝে তবেই এই বিষয়ে তিনি মতামত দেবেন বলে জানান ভারত অধিনায়ক। কারণ তিনি জানেন, তিনি কোনও কথা বললেই তাই নিয়ে আরও অনেকে পাল্টা কথা বলতে পারেন। সাফ জানিয়ে দেন এমন কোনও বিতর্কে তিনি জড়াতে চান না। যে বিষয়ে তাঁর সম্পূর্ণ জ্ঞান নেই, সেই বিষয়ে মন্তব্য করাটা দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো কাজ হবে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ২০১৯ পাস হওয়ার পরই আগুন জ্বলে উঠেছিল অসমে। গুয়াহাটি-সহ বিভিন্ন জেলায় তীব্র হিংসাত্মক আন্দোলন দেখা যাচ্ছিল। ইন্টারনেট, মোবাইল পরিষেবা বন্ধ করে অনেক জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করতে হয়েছিল। এখনও তার আঁচ পুরোপুরি যায়নি। তার মধ্য়েই ভারত-শ্রীলঙ্কা টি২০আই ম্যাচ হচ্ছে। তবে এদিন মাঠে এনআরসি-সিএএ বিক্ষোভ পৌঁছে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছে অসম পুলিশ। এদিনই আবার গুয়াহাটির অন্য অংশে দলের কর্মীদের সামনে বক্তব্য রাখবেন বিজেপির কার্যনির্বাহি সভাপতি জেপি নাড্ডা।