আইপিএল ২০২০-র দ্বিতীয় ম্যাচ, উত্তেজনার দিক দিয়ে ছাপিয়ে গেল প্রথম ম্যাচকে। দুবাইয়ে কাল রাতে দিল্লি ক্যাপিটালস বনাম কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের লড়াইয়ে আইপিএলের ১৩ তম সংস্করণের প্রথম সুপার ওভার দেখতে পেল ক্রিকেট ভক্তরা। শেষ ওভারে অনায়াসে ম্যাচ জেতার সুযোগ থাকলেও মারাত্মক ভুল করে বসেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। স্টোইনিসের শেষ ওভারের শেষ দুই বলে জিততে দরকার ছিল আর এক রান। কিন্তু স্নায়ুর চাপ ধরে রাখতে না পেরে বড় শট খেলতে গিয়ে আউট হন মায়াঙ্ক। এদিন তাঁর ৮৯ রানের দামি ইনিংস শেষ পর্যন্ত অর্থহীন হয়ে যায়। 

সুপার ওভারে আরও একবার দিল্লির নায়ক কাগিসো রাবাদা। দিল্লির হয়ে এর আগে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে আন্দ্রে রাসেলের মতো ব্যাটসম্যানকে আটকে দলকে সুপার ওভারে জিতিয়েছিলেন রাবাদা। এবার ২০২০ আইপিএলের নিজেদের প্রথম ম্যাচে সুপার ওভারে দুরন্ত বোলিং করলেন দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার। সুপার ওভারে রাবাদা মাত্র ২ রান খরচ করে। লোকেশ রাহুলকে ২ এবং নিকোলাস পুরানকে ১ রানে আউট করেন রাবাদা। ২টি উইকেট নিয়ে সুপার ওভারে দিল্লির হয়ে অনবদ্য বোলিং রাবাদার। ম্যাচ জিততে সুপার ওভারে দিল্লিকে ৩ রান করতে হত। পন্থ ও শ্রেয়স আইয়ার ২ বলেই সেই রান সম্পূর্ণ করেন। ফলে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে দুরন্ত জয় দিল্লি ক্যাপিটালসের।

এর আগে মহম্মদ সামি এবং শেলডন কটরেলের দুর্দান্ত বোলিংয়ে দিল্লির টপ অর্ডার ছারখার হয়ে গিয়েছিল। সেইখান থেকে পরিস্থিতি সামলে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন দিল্লি অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার ও উইকেটরক্ষক রিষভ পন্থ। শেষপর্যন্ত তারাও আউট হয়ে ফেরেন সামি এবং তরুণ লেগস্পিনার রবি বিশ্নই-এর দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে। কিন্তু দিল্লির শেষ ওভারে পাঞ্জাবের ক্রিস জর্ডানকে ঠেঙিয়ে হাফসেঞ্চুরি করেন মার্কাস স্টোইনিস। তার সেই অর্ধশতরানেই শেষ পর্যন্ত ম্যাচে তফাৎ গড়ে দেয়।