চলতি বছরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বসেছিল মহিলাদের টি২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপ। টুর্নামেন্টের জনপ্রিয়তা ও সাফল্য ছাপিয়ে গিয়েছিল অন্যান্যবারকে। সেই সাফল্যে খুবই উচ্ছ্বসিত ছিল আইসিসি। তাই মহিলা ক্রিকেটের প্রসার ও জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির জন্য কমনওয়েলথ গেমসে মহিলা ক্রিকেটকে অন্তর্ভূক্ত করার কথা ভাবা হয়েছিল। যোগাযোগ করা হয় কমনওয়েলথ গেমস ফেডারেশন বা সিজিএফের সঙ্গে। অবশেষে দুই পক্ষের সম্মতিতে বুধবার ঐচিহাসিক ঘোষণা করল আইসিসি। জানানো হল, ২০২২-এর কমনওয়েলথ গেমসে হবে মহিলাদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট।

আরও পড়ুনঃফের ভাইরাল 'লায়লা' ও 'গব্বর' জুটি, অস্ট্রেলিয়ায় তাদের নাচের তালে মাতল নেট দুনিয়া

আইসিসির এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে ক্রিকেট বিশ্ব। খুশি ক্রিকেটাররাও। কমনওয়েলথের মত প্রেস্টিজিয়াস প্রতিযোগিতার অংশ হতে পারা সত্যি গর্বের বলেই মনে করছেন সকলে। এখন পর্যন্ত যা খবর ২০২২ সালের ২৮ জুলাই থেকে ইংল্যান্ডের বার্মিংহ্যামে শুরু হচ্ছে কমনওয়েলথ গেমস। ৮ অগাস্ট পর্যন্ত চলবে প্রতিযোগিতা। এর আগে ১৯৯৮ সালে প্রথমবার কমনওয়েলথে গেমসে কোয়ালালামপুরে ক্রিকেটের স্বাদ পেয়েছিল ক্রিকেট প্রেমিরা। তবে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে কমনওয়েলথ গেমসের ইতিহাসে এই প্রথম মহিলাদের ক্রিকেটের অন্তর্ভূক্তি ঘটতে চলেছে। 

 

 

শুধু প্রতিযোগিতার অন্তর্ভুক্তি করাই নয়, কীভাবে প্রতিযোগিতা হবে, যোগ্য অর্জন পর্ব কীভাবে হবে, সবকিছুই ঠিক করে ফেলেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামেক সংস্থা। সিজিএফের সঙ্গে আলোচনার পর আইসিসি-র তরফে জানানো হয়েছে, পয়লা এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত বিশ্ব তালিকার প্রথম ছয় দল প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবে। সপ্তম দল হিসেবে গেমসে অংশ নেবে আয়োজক ইংল্যান্ড। অষ্টম দল কারা হবে, তা যোগ্যতা অর্জন পর্বের মাধ্যমে ঠিক হবে বলে আইসিসি-র তরফে জানানো হয়েছে। 

আরও পড়ুনঃআইপিএলের পরই বাগদান সারলেন নিকোলাস পুরান, জানুন পুরান ও তার হট অ্যান্ড সেক্সি বান্ধবীর প্রেম কাহিনি

আরও পড়ুনঃলকডাউন তরুণ দম্পতিদের নানা সমস্যা, সমাধানে রূপোলি পর্দায় পা রাখছেন সানিয়া মির্জা