করোনা ভাইরাস মহামারীর জেরে স্তব্ধ ক্রীড়া বিশ্ব। ফুটবলের পাশাপাশি যার ব্যাপক প্রভাব পড়েছে ক্রিকেটেও। বাতিল হয়ে গিয়েছে একাধিক আন্তর্জাতিক সিরিজ। স্থগিত হয়ে গিয়েছে একাধিক দেশের ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগগুলি। অনির্দিষ্ট কালের জন্য স্থগিত হয়ে গিয়েছে ভারতের একমাত্র কোটিপতি লিগ আইপিএল। রোনাভাইরাসের কারণে আগামী অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-২০ বিশ্বকাপ নিয়ে শঙ্কা জাগছে। বর্তমান পরিস্থিতি ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকলে বিশ্বকাপ এক বছর পিছিয়ে দেয়ার পরামর্শ ইতোমধ্যেই দিয়ে রেখেছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু এখনই বিশ্বকাপ পিছিয়ে দেয়া নিয়ে ভাবতে রাজি নয় ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল। বিশ্বকাপ আয়োজনের ব্যাপারে আশাবাদী তারা। পাশাপাশি বিশ্বকাপের জন্য বিকল্প চিন্তা-ভাবনা করছে আইসিসি।

আরও পড়ুনঃকরোনা আতঙ্কের মধ্যেই তুর্কমেনিস্তানে শুরু হল ফুটবল লিগ, খেলা দেখল দর্শকও

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ১৮ অক্টোবর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু ইতোমধ্যে করোনাভাইরাসের কারণে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এছাড়া আরও অন্যান্য ইভেন্টও সমস্যায় পড়তে পারে। তবে বিশ্বকাপ নিয়ে আইসিসির হাতে এখনো কিছুটা সময় আছে এবং নির্ধারিত সময়ে শুরুর জন্য প্রস্তুত তারা। কিন্তু পরিকল্পনা পরিবর্তন হতে পারে। আইসিসির এক মুখপাত্র বলেন, ‘আইসিসির ইভেন্টগুলো নির্ধারিত সুচি অনুযায়ী আয়োজনে আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি। যে অবস্থায় আছে, তা চালিয়ে যাবার জন্য আমরা পরিকল্পনা করছি। তবে দ্রুত পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে একটি বিচক্ষণ ও দায়িত্বশীল জরুরী পরিকল্পনা আমরা গ্রহণ করেছি। মহামারীর উপর ভিত্তি করে আমাদের কাছে সকল বিকল্প পথ আছে। আমরা বিশেষজ্ঞ ও কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে পরামর্শ নেয়ার কাজটি চালিয়ে যাবো। এটি নিয়ে অস্ট্রেলিয়া সরকার উপযুক্ত সময়ে সিদ্বান্ত নেবে।’

আরও পড়ুনঃকরোনা মহামারীর জেরে পিছিয়ে গেল বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বের খেলা

আরও পড়ুনঃকরোনা মোকবিলায় নিজের ডাবল সেঞ্চুরির ব্যাট নিলামে তুলছেন মুশফিকুর রহিম

এছাড়াও আইসিসির তরফে জানানো হয়েছে, শুধু ক্রিকেট শুরু করলেই চলবে না,প্লেয়ার, স্টক হোল্ডার. সাপোর্টিম স্টাফ সহ অন্যান্য সকল কর্মচরীদের নিরাপত্তার বিষয়টিও আমাদের খতিয়ে দেখতে হবে। ফলে  সব দিক বিচার করেই পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে চাইছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা। যদিও সবকিছুই নির্ভর করছে বিশ্বব্যাপি করোনা ভাইরাস মহামারীর পরিস্থিতির উপর। শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে আইসিসি। সব পরিস্থিতি আলোচনার জন্য ২৩ এপ্রিল সব ক্রিকেট খেলীয় দেশের সঙ্গে কনফারেন্সের মাধ্যমে একটি বৈঠকও ডেকছে আইসিসি।