প্রথম টেস্টে হারের পর চিপকে দ্বিতীয় টেস্ট জিতে সমতা ফেরাতে মরিয়া টিম ইন্ডিয়া। দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনের শেষে কিছুটা ভালো জায়গায় বারতীয় দল। রোহিত শর্মার অনবদ্য সেঞ্চুরি ও অজিঙ্কে রাহানের অর্ধশতরানের সৌজন্যে ভারতের স্কোর ৬ উইকেটে ৩০০। চেন্নাইতে প্রত্যাশা মতই প্রথম দিন থেকেই ঘুরছে বল। ফলে প্রথম ইনিংসে ৩৫০ থেকে ৩৭৫ ভালো স্কোর বলেই মনে করছেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা। দ্বিতীয় দিনে ঋষভ পন্থ ও অক্সর প্যাটেলের উপর ভরসা রাখছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। যতটা সম্ভব বেশি রান করে প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডকে চাপে রাখাই লক্ষ্য বিরাট বাহিনির।

চেন্নাই প্রথম দিনে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বিরাট কোহলি। কিন্তু শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি টিন ইন্ডিয়ার। দিনের দ্বিতীয় ওভারেই খাতা না খুলে অলি স্টোনের বলে এলবিডব্লু হয়ে সাজঘরে ফেরত যান শুভমন গিল। এরপর চেতশ্বর পুজারা ও রোহিত শর্মা জুটি ভারতীয় স্কোরকে এগিয়ে নিয়ে যায়। এদিন প্রথম থেকেই মারকুটে মেজাজে ছিলেন হিটম্যান। অপরদিকে নিজের শান্ত স্বভাবেই ব্যাট করছিলেন পুজারা। কিন্তু ৮৫ রানের পার্টনারশি করার পর লিচের বলে স্টোকসের হাতে ক্যাচ আউট হন পুজারা। ২১ রান করেন তিনি। এরপর ক্রিজে এসেই মঈন আলির বলে কভার ড্রাইভ মারতে গিয়ে ব্যাট-প্যাডের ফাঁক দিয়ে বল গলে শূন্য রানে বোল্ড হয়ে যান বিরাট কোহলি। ৮৬ রানে তিন উইকট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারতীয় দল।

এরপর ইনিংসের রাশ ধরেন রোহিত শর্মা ও অজিঙ্কে রাহানে। একের পর এক অনবদ্য শট খেলে প্রথমে নিজের অর্ধশতরান পরে শতরান পূরণ করেন রোহিত। তাকে যোগ্য সঙ্গত দেন রাহানেও। তিনিও নিজের অর্ধশতরান পূর করেন। ৮৬ থেকে  ২৪৮, অর্থাৎ ১৬২ রানের পার্টনারশিপ গড়েন এই দুই তারকা ব্যাটসম্যান। রোহিত-রাহানে জুটির উপর ভরসা করে লড়াই করার জায়গায় পৌছে যায় ভারতীয় দল। ব্যাক্তিগত ১৬১ রানে থামেন রোহিত শর্মা। জ্যাক লিচের বলে মঈন আলির হাতে ক্যাচ আউট হন তিনি। ১৮টি চার ও ২টি ছক্কায়সাজানো তার এই অসাধারণ ইনিংস। রোহিত ফিরতেই সাজঘরে ফেরেন অজিঙ্কে রাহানেও। ২৪৯ রানের মাথায় পঞ্চম উইকেট পড়ে ভারতের। ৯টি চারের সাহায্যে ৬৭টি রান করার পর মঈন আলি বলে সুইপ মারতে গিয়ে বোল্ড হন রাহানে।

তারপর ঋষভ পন্থ ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন কিছুটা এগিয়ে নিয়ে যান ভারতীয় দলের ইনিংস। ৩৫ রানের ছোট্ট পার্টনারশিপ করেন তারা। তবে ১৩ রান করে জো রুটের বলে আউট হন অশ্বিন। ২৮৪ রানে ষষ্ঠ উইকেটের পতন হয় ভারতের। দিনের শেষে ভারতের স্কোর ৩০০ রানে ৬ উইকেট। ক্রিজে ৩৩ রানে অপরাজিত রয়েছেন পন্থও ৫ রানে ব্যাট করছেন অক্সর প্যাটেল। এই দুই জুটির উপর ভরসা করেই যতটা সম্ভব প্রথম ইনিংসে রান তোলাই লক্ষ্য ভারতের। কারণ প্রথম দিন থেকেই যেভাবে বল ঘুরছে চিপকে, তাতে প্রথম ইনিংসে বড় রানের লিড নিতে চাইছে ভারতীয় দল। কারণ তৃতীয় ও চতুর্থ ইনিংসে ব্যাট করা আরও কঠিন হবে উইকেটে। ফলে প্রথম ইনিংসে স্কোরের নিরিখে ভারতীয় দলকে কিছুটা অ্যাডভান্টেজ দিচ্ছে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা।