নিউজিল্যান্ড-এর মাঠে ইতিহাস গড়ল ভারত। টি টোয়েন্টি সিরিজে নিউজিল্যান্ডকে তাদেরই ঘরের মাঠে ৫-০ হোয়াইটওয়াশ করল টিম ইন্ডিয়া। এ দিন মাউন্ট মনগানুইয়ে পঞ্চম টি টোয়েন্টি-তে নিউজিল্যান্ডকে ৭  রানে হারাল ভারত। বিশ্বের প্রথম দল হিসেবে কোনও টি টোয়েন্টি সিরিজ ৫-০ ব্যবধানে জিতেও নজির গড়ল ভারত। 

এ দিনের ম্যাচে বিশ্রাম নেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তার জায়গায় অধিনায়ক হন রোহিত শর্মা। কিন্তু ব্যাটিংয়ের সময় রোহিত আহত হওয়ায় ভারতকে নেতৃত্ব দেন কে এল রাহুল। ২২৪ রান করে সিরিজ সেরাও হন তিনি। 

আরও পড়ুন- এক ওভারে দিলেন ৩৪ রান, ইতিহাস সৃষ্টির দিনেই লজ্জার রেকর্ড শিবমের

এ দিন টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৬৩ রান তোলে ভারত। ওপেনিংয়ে আরও একবার সুযোগ পেয়েও ব্যর্থ হন সঞ্জু স্যামসন। বিরাট কোহলির বদলে এ দিন তিন নম্বরে নেমেছিলেন রোহিত শর্মা। রাহুল- রোহিত জুটির দুরন্ত ব্যাটিংয়ে বড় রান গড়ার দিকেইন এগোচ্ছিল ভারত। কিন্তু ৩৩ বলে ৪৫ রান করে  রাহুল ফেরার পরেই ব্যাট রান নিতে গিয়ে পেশিতে টান ধরে রোহিতের। লম্বা সফরের কথা ভেবে ব্যাটিংয়ের ঝুঁকি নেননি তিনি। ৪৪ বলে ৬০ রান করে রোহিত রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরতেই থমকে যায় রান ওঠার গতি। শেষ শ্রেয়স আয়ার  ও মনীশ পান্ডের সৌজন্যে দেড়শো পার করে ভারত। 

রান তাড়া করতে নেমে প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে রস টেলর ও সেইফার্ট মিলে আগের ম্যাচের মতোই নিশ্চিন্তে রান তাড়া করছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু নিউজিল্যান্ড-এর এই দলটা হারতে হারতে প্রবল চাপে পড়ে গিয়েছে। শিবম দুবের এক ওভারে ৩৪ রান তোলেন রস টেলর। তখন মনে হচ্ছিল ৫-০ করার স্বপ্ন অধরাই থেকে যাবে। একটা সময়ে জয়ের জন্য ৬০ বলে মাত্র ৬৬ দরকার ছিল নিউজিল্যান্ড-এর। হাতে ছিল ৭ উইকেট। কিন্তু সেইফার্ট ফিরতেই ধস নামে নিউজিল্যান্ড ইনিংসে। পর পর উইকেট তুলে ভারতকে ম্যাচে ফেরান বুমরাহ, সাইনি জুটি। চার ওভারে মাত্র বারো রান দিয়ে বুমরাহ নেন তিনটি উইকেট। এ দিন পুরনো ছন্দেই বল করতে দেখা গিয়েছে ভারতের সেরা পেসারকে। ম্যাচের সেরা বাছা হয় বুমরাকেই। আর নবদীপ সাইনি তুলে নেন দু'টি উইকেট। ১৮ তম ওভারে রস টেলর ফিরতেই নিউজিল্যান্ড-এর আশা শেষ হয়ে যায়। শেষ ওভারে ইশ সোধি একটা মরিয়া চেষ্টা করলেও ঠান্ডা মাথায় পরিস্থিতি সামাল দেন শার্দুল ঠাকুর। ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৫৬ তোলে নিউজিল্যান্ড।