দুর্বল শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সিরিজে রোহিত শর্মা বিশ্রামে ছিলেন। ফলে ওপেনার হিসেবে কে এল রাহুল এবং শিখর ধাওয়ানকে বেছে নিতে অসুবিধা হয়নি টিম ম্যানেমেন্ট-এর। কিন্তু মঙ্গলবার থেকে শুরু হতে চলা অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের সিরিজে দলে ফিরছেন রোহিত। মুম্বাইকরের সঙ্গে রাহুল না অভিজ্ঞ ধবন, কে ইনিংস শুরু করবেন, সেটা বেছে নেওয়াই এখন কঠিন প্রশ্ন বিরাট কোহলি, শিখর ধওয়ানদের সামনে। 

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ভারতের এই তিন ম্য়াচের সিরিজ যে যথেষ্টই উত্তেজক হতে যাচ্ছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। একপেশে ক্রিকেট দেখতে হবে না, এই আশাটুকু করতেই পারেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। দু' দলের কাছেই এই সিরিজ নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের মতো বিষয়। 

২০১৯ সালে ভারতে এসে পাঁচ ম্যাচের একদিনের সিরিজ ৩-২ ব্যবধানে জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। সেই জয়ের থেকে যে তাঁরা অনুপ্রেরণা খুঁজছেন, তা আগেই জানিয়ে দিয়েছেন অস্ট্রেলিয় অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। 
একদিকে বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, অন্যদিকে দুরন্ত ছন্দে থাকা স্মিথ, ফিঞ্চদের নিয়ে গড়া ব্যাটিং লাইন আপ। আবার অস্ট্রেলিয়ার হাতে যদি প্যাট কামিন্স, কেন রিচার্ডসন, মিচেল স্টার্কদের আগুনে গতি আর সুইংয়ের বৈচিত্র্য থাকে, তাহলে বিরাটের হাতেও অভিজ্ঞ শামি, বুমরাহ থেকে শুরু করে নবাগত নবদ্বীপ সাইনিরাও থাকছেন। 

এই সমস্ত উত্তেজক লড়াইয়ের মধ্যেও রোহিতের জুড়িদার খুঁজে নেওয়াই কোহলি- শাস্ত্রীদের কাছে সবথেকে কঠিন চ্যালেঞ্জ। সাম্প্রতিক ফর্ম যদি মাপকাঠি হয়, তাহলে অভিজ্ঞ ধাওয়ানের থেকে অনেকটাই এগিয়ে থাকবেন তরুণ কে এল রাহুল। আবার অসিদের বিরুদ্ধে একদিনের ক্রিকেটে ধাওয়ানের ঈর্ষণীয় রেকর্ডও তাঁকে বাদ দেওয়ার আগে শাস্ত্রীদের ভাবাতে বাধ্য করবেই। এমন কী, গত বছর একদিনের বিশ্বকাপেও ধাওয়ানের শতরানের সুবাদেই অস্ট্রেলিয়াকে সহজে হারিয়েছিল ভারত। যদিও তারপর থেকে ধাওয়ানের ফর্ম পড়তির দিকেই। 

ভারতের ব্যাটিং কোচ বিক্রম রাঠোর অবশ্য এই দ্বন্দ্বকে ইতিবাচকভাবেই নিচ্ছেন। সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, 'এই ধরনের মাথাব্যথা থাকা সবসময়ই ভাল। দু' জনেই ভাল ব্যাটিং করছে। শিখর একদিনের ক্রিকেটে যথেষ্ট ভাল করেছে, রাহুলও ভাল ফর্মে আছে। টিম ম্যানেজমেন্ট নিজেদের মধ্যে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেব। একজনকে তো বসতে হবেই। কিন্তু সেটা কোনও সমস্যা নয়।'

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে  স্টেডিয়ামে ভাল উইকেট হবে বলেই মনে করা হচ্ছে। সম্ভবত দুই স্পিনার না খেলিয়ে কুলদীপ যাদবের উপরেই ভরসা রাখবেন কোহলিরা। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিকও রয়েছে কুলদীপের।