হোটেল থেকে চেক-আউট করছেন। স্বাভাবিকভাবেই আশপাশে অনেক লোক রয়েছে। রয়েছে সাপোর্ট স্টাফ-রাও। তিনি ভারতের অন্যতম পুরুষ তারকা, তাই তাঁকে ঘিরে জনসাধারণের আগ্রহ থাকাটাও খুব স্বাভাবিক। তারমধ্য়েই  স্ত্রী সাক্ষী ধোনি এমন শুরু করে দিলেন, যে তখন আর মুখ তুলেই তাকাতে পারছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। গালদুটো তখন লজ্জায় তাঁর রক্তাভ।    

২০১৮ সালের আইসিসি বিশ্বকাপ-এর সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে ভারত বিদায় নেওয়ার পর থেকে তাঁকে আর মাঠে দেখা যায়নি। তাঁর আন্তর্জাতিক ভবিষ্যত নিয়ে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ থেকে দর্শকদের মধ্যে অনুমানের শেষ নেই। তাই বলে প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক তাঁর অনুরাগীদের জন্য বিনোদনের কোনও অভাব রাখেননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি ও তাঁর স্ত্রী সাক্ষী দুজনেই অত্যন্ত সক্রিয়।

সম্প্রতি তাঁর স্ত্রী সাক্ষী ধোনির শেয়ার করা এক ভিডিও-তে দেখা গেল এমএস-এর চূড়ান্ত পেছনে লাগছেন তাঁর স্ত্রী। ভিডিওটি সাক্ষী নিজেই রেকর্ড করেছেন। তাতে তাঁকে ধোনি-কে উদ্দেশ্য করে সবার সামনেই বলতে শোনা যাচ্ছে, 'হাই সুইটি। (ধোনি মাথা নামিয়ে চলে যেতে গেলে) কমপক্ষে আমার দিকে তাকাও। ও আমার দিকে তাকাচ্ছেও না। সুইটি আমার দিকে তাকাচ্ছে না কেন? দিনের সেরা সুইটি, দিনের সেরা কিউটি...' ক্যাপ্টেন কুল-কে চুড়ান্ত অস্বস্তিতে ফেলে সাক্ষি বলেই যেতে থাকেন।

ধোনি কোনও প্রতিক্রিয়া না দেখিয়ে স্বাভাবিক থাকার চেষ্টা করলে, সাক্ষী হোটেলের এক কর্মীকেই ডেকে জিজ্ঞাসা করেন, 'ও কি কিউট, না?' ওই কর্মীও হেসে মাথা নাড়িয়ে সম্মতি জানান। ওই পোস্টেই শেয়ার করা আরও এক ভিডিওতে ধোনিকে প্রথমবার সাক্ষীর দিকে তাকাতে দেখা যায়। সাক্ষী জিজ্ঞেস করেন, 'তুমি কি লজ্জা পাচ্ছ?' প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক বলেন, 'তোমার কী আর কোনও কাজ নেই?'

দীর্ঘদিন ক্রিকেটের মধ্যে নেই ধোনি। সম্প্রতি ভারতীয় বোর্ডের বার্ষিক চুক্তি তালিকা থেকে তিনি বাদ পড়ায় তাঁর অবসর জল্পনা আরও জোরদার হয়েছে। যদিও এর পরপরই ধোনি-কে ফের ঝাড়খণ্ড রঞ্জি দলের সঙ্গে অনুশীলন করতে দেখা গিয়েছে। বিসিসিআই-এর তরফে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়-ও কিছু ঝেড়ে কাশেননি। বোর্ডের স্পষ্টতা রয়েছে বলে কাটিয়ে গিয়েছেন। ভারতের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী সম্প্রতি এক সাক্ষাত্কারে বলেছেন ধোনি খুব শিগগিরই ওয়ানডে থেকে অবসর নেবেন এবং আইপিএল-এর উপর তাঁর টি২০ ভবিষ্যত নির্ভর করছে।