সব প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে শুরু হল আইপিএল ২০২০। প্রথম ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন চেন্নাই সুপার কিংসের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। প্রথম চার ওভারে দুরন্ত শুরু করেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও কুইন্টন ডিকক। বিশেষ করে মারাকাটারি ইনিংস খেলতে শুরু করেন ডিকক। প্রথম দিকে ওভারে ১০ এর বেশি রান রেটে রান তুলতে শুরু করেন মুম্বইয়ের দুই ওপেনার। কিন্তু তারপর বোলিং চেঞ্জ করেন ধোনি। পঞ্চম ওভারে বোলিংয়ে নিয়ে আসেন অভিজ্ঞ পীযুষ চাওলাকে। আর বোলিংয়ে এসেই দলকে সাফল্য এনে দেন পীযুষ। তার বোলিংয়ে ব্যাক্তি ১২ রানে মিড অনে ক্যাচ আউট হন রোহিত। ৪৬ রানে প্রথম উইকেট পড়ে মুম্বইয়ের। তারপরের ওভারেই  স্যাম কুরানের বলে মিড উইেকেটে ক্যাচ আউট হন ডি কক। ৪৮ রানে দ্বিতীয় উইকেট পড়ে মুম্বইয়ের। ডি কক করেন ২০ বলে ৩৩ রান।

এরপর খেলার রাশ ধরার চেষ্টা করেন মুম্বইয়ের দুই মিডল অর্ডার ব্যাটস ম্যান সৌরভ তিওয়ারি ও সূর্যকুমার যাদব। চতুর্থ উইকেটের জন্য ৪৪ রানের পার্টনারশিপ করেন দুজন। ৯২ রানে তৃতীয় উইকেট পড়ে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের। দীপক চাহরের বলে ব্যক্তিগত ১৭ রানে আউট হন সূর্যকুমার যাদব। তার পরে উইকেটে আসেন হার্দিক পান্ডিয়া। দীর্ঘ দিন পর মাঠে নেমেই পরপর দুটি ছয় হাঁকিয়ে নিজের জাত চেনান হার্দিক। অপরদিকে দীর্ঘ দিন পর মাঠে ফিরে দুরন্ত ইনিংস চালিয়ে যান সৌরভ তিওয়ারি। কিন্তু ১৫ তম ওভারে ব্যাক্তিগত ৪২ রান করে রবীন্দ্র জাদেজার বলে আউট হন তিনি। দুর্দান্ত ক্যাচ ধরেন ফাফ ডুপ্লেসি। একই ওভারে হার্দিক পান্ডিয়াকেও আউট করেন জাদেজা। ফের আরও একটি অবিশ্বাস্য ক্যাচ ধরেন ডুপ্লেসি। ১৪ রানে আউট হন হার্দিক।

১৫ তম ওভারে পরপর দুটি উইকেট নিয়ে ফের ম্যাচে ফেরেন চেন্নাই সুপার কিংস। এরপর মাঠে নামে তেমন একটা নজর কাড়তে ব্যর্থ হন ক্রুণাল পাণ্ডিয়াও। এনগিডির বলে ৩ রানেই আউট হন ক্রুণাল। কায়রন পোলার্ড কিছুটা লড়াই দেওয়ার চেষ্টা করলেও, ১৮ রানে এনগিডির বলে আউট হন পোলার্ড। এরপর আরও একটি উইকেট নেন লুঙ্গি এনগিডি। ১১ রান করে তার বলে আউট হন জেমস প্যাটিনসন। শেষ ওভারে ট্রেন্ট বোল্টকে আউট করে প্যাভেলিয়নে ফেরান দীপক চাহর। শেষে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৬২ রান করে মুম্বই। চেন্নাইয়ের হয়ে ৩ টি উইকেট নেন এনগিডি, দুটি করে উইকেট নেন জাদেজা ও দীপক চাহর ও একটি করে উইকেট নেন পীযুষ চাওলা ও স্যাম কুরান। আইপিএল ২০২০-র প্রথম ম্য়াচে ধোনির দলের কাছে জয়ের জন্য টার্গেট ১৬৩ রান।