প্রাক্তন পাকিস্তানি ওপেনার নাসির জামশেদকে ১৭ মাসের কারাদন্ড দেওয়া হলো। পাকিস্তান ক্রিকেট লিগে ম্যাচ গড়াপেটায় ইন্ধন জোগানোর অভিযোগ ছিল তাঁর বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ২০১৮ সালেই পিসিবি জামশেদকে ১০ বছরের জন্য সাসপেন্ড করেছিল। এবার আরও বড় শাস্তির মুখোমুখি হলেন জামশেদ। 

জামশেদের স্ত্রী সামারা আফজল-কে এই ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, জামশেদের এই সাজা ভবিষ্যতের ক্রিকেটারদের কাছে দৃষ্টান্তমূলক। খেলা নিয়ে দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত হলে কি পরিণাম হতে পারে তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেবে এই শাস্তি। তিনি আরও জানিয়েছেন যে জামশেদের মধ্যে অনেক প্রতিভা ছিল এবং ক্রিকেটকে তার অনেক কিছু দেওয়ার ছিল। কিন্তু জামশেদ তাড়াতাড়ি বেশি বড় কিছু পাওয়ার জন্য একটা ভুল করে ফেলে। তার ফলে জামশেদের গোটা কেরিয়ার, তাঁর যাবতীয় সম্মান এবং স্বাধীনতা সব চলে গেল। সামারা জানিয়েছেন জামশেদ পারলে সময় পরিবর্তন করে অতীতে গিয়ে সব ঠিক করে আসতে চায়। নয়তো নিজের সন্তানের সামনে মুখ তুলে দাঁড়ানোও তার পক্ষে মুশকিল। কিন্তু এখন বড্ড দেরি হয়ে গিয়েছে। আর কোনওভাবেই কোনোকিছু পরিবর্তন করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন সামারা। 

একা জামশেদ নন, ম্যাচ গড়াপেটায় যুক্ত আরও দুই ক্রিকেটার ইউসুফ আনোয়ার ও মহম্মদ জিয়াজেরও সাজা ঘোষণা করেছে পিসিবি। আনোয়ারের ৪০ এবং জিয়াজের ৩০ মাসের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। এবাদে নাসির জামশেদের কথামতো দুটি ডট বল খেলার জন্য শারজিল খান-কে ৫ বছরের জন্য সাসপেন্ড করেছে পিসিবি।