অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে লড়াই করেও হারতে হলো ভারতকে। ফাইনালে গতবারের বিজয়ীদের হারিয়ে প্রথমবারের মতো অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ ঘরে তুলেছে বাংলাদেশ। বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে রান তাড়া করতে নেমে ডার্কওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ৩ উইকেটে জয় পায় বাংলাদেশ। বাংলা অধিনায়ক আকবর আলি গোটা টুর্নামেন্টে রান পাননি তেমন। কিন্তু জ্বলে উঠলেন ফাইনালের দিন। পরপর উইকেট পড়ার সময় একা কুম্ভ হয়ে দাঁড়িয়ে অধিনায়কোচিত ইনিংস খেলে দলের জয় নিশ্চিত করেন তিনি। 

এই জয়ের আনন্দ শুধুমাত্র সীমাবদ্ধ নেই বাংলাদেশে। এই মুহুর্তে টেস্ট সিরিজ খেলতে পাকিস্তানে রয়েছে বাংলাদেশ। সেখানে উপস্থিত বাংলাদেশের সিনিয়র খেলোয়াড় এবং সাংবাদিকদেরকে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে পাকিস্তানি ক্রিকেট মহল থেকে। সেখানে উপস্থিত বাংলাদেশি মিডিয়ার কাছ থেকে এটাও জানা গেছে যে সেই ঐতিহাসিক ফলাফলের পর তাদেরকে মিষ্টিমুখও করানো হয়েছে।

ইদানীং কালে জৌলুস হারিয়েছে ভারত-পাকিস্তান দ্বৈরথ। পাকিস্তান এবং ভারতের মধ্যে শেষ দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হয়েছিল ভারতের মাটিতে। সিরিজ চলেছিল ২০১২ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৩ সালের জানুয়ারি অবধি। টি-টোয়েন্টি সিরিজ ড্র হলেও ওয়ান-ডে-তে বাজিমাত করে পাকিস্তান। তারপর থেকে শুধুমাত্র বিভিন্ন টুর্নামেন্টেই দেখা হয়েছে দুই দলের। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির মতো দু একটি ব্যাতিক্রমী ঘটনা বাদ দিলে ভারত একচেটিয়া দাপট দেখিয়েছে এই লড়াইয়ে। এই অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপেও পাকিস্তানকে ভারতের কাছে লজ্জাজনক ভাবে হেরে বিদায় নিতে হয় টুর্নামেন্ট থেকে। তাই পাকিস্তান যে ভারতের হার দেখে খুশি হবে এতে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই। 

সম্প্রতি পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে নেমেছিল বাংলাদেশ। তাদের বিশ্রীভাবে হারায় পাকিস্তান। বাংলাদেশকে হারাতে পাকিস্তানকে দুই ইনিংসে ব্যাট হাতে নামতেও হয়নি। ইনিংস এবং ৪৪ রানে বাংলাদেশকে লজ্জার হার উপহার দেয় পাক দল। কিন্তু সেই জয়ের চেয়েও তারা এখন বেশি খুশি অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হারে।