বৃহস্পতিবার কলকাতার এক পাঁচ তারা হোটেলে যখন ইন্ডায়ান প্রিমিয়ার লিগের নিলাম পর্ব চলছে, তখন অনেক ক্রিকেটার টিভির পর্দায় চোখে রেখেছিলেন। আইপিএল খেলার সুযোগ, সঙ্গে প্রচুর টাকা উপার্জনের সুযোগ। দুটোই তরুণ ক্রিকেটারদের কাছে উচ্ছ্বাসের বিষয়। মুম্বইয়ের আজাদ ময়দানে উচ্ছ্বাসটা এদিন একটি বেশিই ছিল। কারণ এই ময়দান থেকে ক্রিকেটার হয়ে ওঠা এক তরুণ এদিন যে জীবনে অনেক কঠিন সংগ্রামের দাম পেলেন। যশস্বী জয়সওয়াল। উত্তর প্রদেশ থেকে ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে আসা এক ছেলে। কিন্তু ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন দেখা আর ক্রিকেটার হয়ে ওঠার মধ্যে যে অনেক বড় সংগ্রাম থাকে। সেই সংগ্রাম করেছেন যশস্বী। 

 

আরও পড়ুন - কলকাতায় আইপিএল নিলাম, বাজার কাঁপালেন বোলাররা

থাকার ঘর ছিল না। আজাদ ময়দানের অন্ধকার তাঁবুতে থেকেছেন। ক্রিকেটের খরচ চালানোর জন্য দুধের ডেয়ারিতে কাজ করেছেন, কিন্তু কাজে কম মন না দেওয়ার অপরাধে সেখান থেকে চাকরি খোয়াতে হয়েছে। এরপর ফুচকার দোকান দিয়েছেন। সকালে অনুশীলন তারপর বিকেলে ফুচকা বিক্রি। আইসিসিকে দেওয়া একটা ইন্টারভিউতে যশস্বী বলেছিলেন, ‘খারপ লাগত যখন আমার সতীর্থরা আমার দোকানে ফুচকা খেতে আসত। কিন্তু কোনও কাজ-ই ছোট বা বড় নয়, এটা ভেবেই পরিশ্রম করে গিয়েছি।’ তবে এবার জীবনটা বদলে যাবে যশস্বীর। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাঁর চোখও ছিল মোবাইলের পর্দায়। নিজের নামটা দেখার পর উত্তেজনাও হয়েছে। কিন্তু যশস্বীর মতে দায়িত্বটা আরও বেড়ে গেল। আরও অনেক কিছু শিখত হবে তাঁকে। 

 

 

আরও পড়ুন - আইপিএল ২০২০-র সবথেকে দামি ক্রিকেটার কামিন্স, কলকাতা পেল এক শক্তিশালী বোলারকে

আইপিএলের মঞ্চে নামার আগে অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের জার্সিতে মাঠে নামবেন যশস্বী। বিজয় হাজারে ট্রফিতে মুম্বই দলের হয়ে অভিষেক হয়েছে তাঁর। আর প্রথম সিজনেই একটা রেকর্ড গড়েছেন যশস্বী। সব থেকে কম বয়েসে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ডাবল সেঞ্চুরি করার রেকর্ড গড়েছেন তিনি। আর সেই দুরন্ত পারফরম্যান্স তাঁকে দেশের অনুর্ধ্ব ১৯ দলে জায়গা এনে দিয়েছে। এবার দেশের জার্সিতে বিশ্বকাপ ধরে রাখার লড়াইতে নামতে চলেছেন যশস্বী। তারপর তিনি রাজস্থানের পিঙ্ক জার্সিতে মাঠে নামবেন আইপিএলের মঞ্চে। 

আরও পড়ুন - কেকেআর-এ কি উইকেটের বর্ষণ ঘটাবেন বরুণ চক্রবর্তী, জল্পনা উসকে পেলেন আকাশ ছোঁয়া দর