মঙ্গলবার ভারতীয় কিংবদন্তি সচিন টেন্ডুলকার এবং প্রাক্তন অজি পেসার ব্রেট লি করোনা পরবর্তী অধ্যায়ে ক্রিকেট কেমন হতে চলেছে সেই নিয়ে একে অপরের সাথে আলোচনায় বসেছিলেন। সেখানে তারা লালারস ব্যবহার করে বল চকচকে রাখার নিয়মের ওপর যে নিষেধাজ্ঞা বসতে চলেছে তা নিয়েও আলোচনা করেন। লি-এর মতে বোলারদের পক্ষে এই নতুন নিয়মের সাথে মানিয়ে নেওয়া অনেক কঠিন হতে চলেছে। সচিন মনে করেন এই পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে টেস্ট ম্যাচে ৮০ ওভারের পরিবর্তে ৫০ ওভার পর পর নতুন বল ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া উচিত বোলারদের। 

আরও পড়ুনঃকরোনা আবহে ক্রিকেটে একাধিক নয়া নিয়ম জারি করল আইসিসি,জেনে নিন আপনিও

লি জানান যে ৮-৯ বছর বয়স থেকে তারা লালার ব্যাবহার করে বল চকচকে রাখতে অভ্যস্ত। এখন আচমকা সেই নিয়মে পরিবর্তন হচ্ছে। তাই তার মতে নিয়মটি বোলারদের জন্য খুবই কঠিন ও চ্যালেঞ্জিং হতে চলেছে। সবসময় সব পরিস্থিতিতে ঘাম বেরিয়ে আসে না খেলোয়াড়দের। যদি ঘাম না পাওয়া যায় এবং লালার ব্যবহারও নিষিদ্ধ থাকে তবে কিভাবে বোলাররা বলের চমক ধরে রাখবেন, সেই নিয়ে এখন থেকেই চিন্তিত ব্রেট। 

 

 

আরও পড়ুনঃভারতীয় ফুটবলের পরবর্তী মরশুমের রোডম্যাপ ঘোষণা এআইএফএফ এর

আরও পড়ুনঃভারতীয় ফুটবলের পরবর্তী মরশুমের রোডম্যাপ ঘোষণা এআইএফএফ এর

সচিনের মতে ক্রিকেট ফিরের আগেই আইসিসির এই ব্যাপারটা নিয়ে ভাবা উচিত। তাদের কোনও জিনিসের ব্যবস্থা করা উচিত যা দিয়ে বোলাররা তাদের বল চকচকে রাখতে পারবে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খুব সম্ভবত জুলাই মাসে থেকে ফিরতে চলেছে। ব্রেট লি-এর মতে খেলা ফিরলে ম্যাচ শুরুর ২ ঘন্টা আগে প্রতিটি খেলোয়াড়রের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করা উচিত এবং তাদেরকে জীবাণুমুক্ত পরিবেশে রাখা উচিত যাতে তারা কোনরকম ভাবেই সংক্রমণের আওতায় না পড়েন।