চলতি রঞ্জি ট্রফিতে থামানোই যাচ্ছে না মুম্বই-এর ব্যাটসম্যান সরফরাজ খান-কে। মঙ্গলবার নিয়ে টানা তিন ম্যাচে তৃতীয়বারের মতো রেকর্ড বইয়ে নিজের নাম তুললেন এই মিডল অর্ডার ব্য়াটসম্যান। শুধু তাই নয়, একইসঙ্গে তিনি জায়গা করে নিলেন ক্রিকেটের কিংবদন্তী ব্যাটসম্যানদের পাশে। চলতি রঞ্জি ট্রফিতে আগের সরফরাজের রান ছিল যথাক্রমে অপরাজিত ৩০১ এবং অপরাজিত ২২৬। সরফরাজ-কে আউট করার কোনও জায়গাই পাচ্ছিলেন না বোলাররা। রাজকোটে অবশ্য সৌরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বি গ্রুপের ম্যাচের প্রথম দিনই তিনি আউট হলেন। তবে তার আগে করে গেলেন দুর্দান্ত ৭৮টি রান।

এদিন কমলেশ মাকওয়ানা-র বলে আউট হয়ে সরফরাজ একেবারে নিশ্চিত আরও একটি শতরান হারালেন ঠিকই, কিন্তু তার আগে অপরাজিত অবস্থায় মোট ৬০৫ প্রথম শ্রেণির রান যোগ করলেন। যা প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এক অনন্য রেকর্ড। এই বিষয়ে সর্বাধিক রানের রেকর্ডটি রয়েছে আরও এক ভারতীয়ের হাতেই। ১৯৪৭-৪৮ সালে কেসি ইব্রাহিম অপরাজিত থেকে ৭০৯ রান করেছিলেন। ইব্রাহিম ছাড়াও গ্রাহাম হিক, বিজয় মার্চেন্ট, প্যাটসি হেন্ড্রেন, এস বদ্রীনাথ এবং পঙ্কজ ধার্মানিরা সর্বকালের সেরাদের তালিকায় সরফরাজের উপরে রয়েছেন। সরফরাজ পিছনে ফেললে দিয়েছেন, ইডি উইকস, জেকম্যান, বব সিম্পসন, ভিভিএস লক্ষ্মণদের মতো তারকাদের।

অপরাজিত থেকে সবচেয়ে বেশি রান
(প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে)

৭০৯ কেসি ইব্রাহিম (ভারত, ১৯৪৭-৪৮)
৬৪৫ গ্রাহাম হিক (ইংল্যান্ড ১৯৯০)
৬৩৪ বিজয় মার্চেন্ট (ভারত, ১৯৪১-৪২)
৬৩০ ইএইচ হেন্ড্রেন (ইংল্যান্ড ১৯২৯-৩০)
৬২৫ এস বদ্রিনাথ (ভারত, ২০০৭-০৮)
৬০৮ পঙ্কজ ধার্মানি (ভারত, ১৯৯৯-২০০০)
৬০৫ সরফরাজ খান (ভারত, ২০১৯-২০)
৫৭৫ ইডি উইকস (ওয়েস্টইন্ডিজ, ১৯৫০)
৫৫৮ এফ জেকম্যান (ইংল্যান্ড, ১৯৫১)
৫৪৫ বব সিম্পসন (অস্ট্রেলিয়া ১৯৫৯-৬০)
৫৩৮ ভিভিএস লক্ষ্মণ (ভারত, ১৯৯৭-৯৮)
৫৩০ ভিভিএস লক্ষ্মণ (ভারত, ১৯৯৯-২০০০)

এদিন ম্যাচে শুরুতে মুম্বই অবশ্য ৮৮ রানে ৪ উইকেট কহারিয়ে সমস্যায় পড়েছিল। সেখান থেকে সরফরাজ ৯ টি চার এবং ২টি বিশাল ছক্কা মেরে দলকে ১৯৭/৪-এ পৌঁছে দেন। এর আগের ইনিংসে ডাবল সেঞ্চুরি করায় তামিলনাড়ুর ডাব্লুভি রামন-এর পর দ্বিতীয় ভারতীয় হিসেবে তিনি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ট্রিপল সেঞ্চুরির পরের ইনিংসেই দ্বিশতরান করেছিলেন। আর তার আগের ইনিংসে তিনি সপ্তম মুম্বই ব্যাটসম্যান হিসাবে রঞ্জি ট্রফিতে ত্রিশতরান করেছিলেন। জায়গা করে নিয়েছিলেন সুনীল গাভাস্কর, সঞ্জয় মঞ্জরেকর, ওয়াসিম জাফর, রোহিত শর্মা, বিজয় মার্চেন্ট এবং অজিত ওয়াদেকার-দের পাশে।

মুম্বইয়ের বাসিন্দা হয়েও সরফরাজ রঞ্জি খেলা শুরু করেন উত্তরপ্রদেশের হয়ে। গত মরসুমেই তিনি প্রথম মুম্বই-এর হয়ে খেলা শুরু করেন। গত মরসুমে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে না পারলেও এই বছর তিনি স্বপ্নের ফর্মে রয়েছেন।