তাঁকে ভারতের অন্যতম প্রতিশ্রুতিমান ব্যাটসম্যান হিসেবে ধরা হচ্ছে। কুড়ি বছর বয়সি শুভমন গিল ইতিমধ্যে জাতীয় দলের হয়েও অভিষেক করে ফেলেছেন। আইপিএল-এ কলকাতা নাইট রাইডার্স-এর ব্যাটিং-এ অন্যতম ভরসাও তিনি। এ হেন প্রতিশ্রুতিমান শুভমন গিল শুক্রবার রঞ্জি ট্রফির ম্যাচে বড়সড় বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন। আউটের সিদ্ধান্ত মানতে না পেরে মাঠেই আম্পায়রকে গালাগাল দেওয়ার অভিযোগ উঠল তাঁর বিরুদ্ধে। এমন কী, চাপে পড়ে আম্পায়ার আউটের সিদ্ধান্ত বদলে ফের শুভমনকে খেলতেও দেন। সবমিলিয়ে শুক্রবার চূড়ান্ত নাটকের সাক্ষী থাকল মোহালির আই এস বিন্দ্রা স্টেডিয়াম। 

শুক্রবার রঞ্জি ট্রফির ম্যাচে দিল্লির মুখোমুখি হয়েছিল পঞ্জাব। দলের হয়ে ব্যাট করতে নেমে পঞ্জাবের ওপেনার শুভমন যখন ব্যক্তিগত দশ রানে ব্যাট করছিলেন, তখন দিল্লির স্পিনার সুবোধ ভাটির বলে তাঁকে স্টাম্প করেন দিল্লির উইকেটকিপার। দিল্লির ক্রিকেটারদের আবেদনে গিলকে আউট দেন আম্পায়ার পশ্চিম পাঠক। আর এই সিদ্ধান্তেই রীতিমতো উত্তেজিত হয়ে পড়েন তরুণ ব্যাটসম্যান। 

অভিযোগ, শুভমন দাবি করেন তিনি আউট ছিলেন না। আম্পায়ার আউট দেওয়ার পরেও ক্রিজ ছেড়ে নড়েননি তিনি। উল্টে আম্পায়ারকে গালিগালাজ করতে শুরু করেন বলে অভিযোগ। যে আম্পায়ার তাঁকে আউট দিয়েছিলেন, সেই পশ্চিম পাঠকের এটাই ছিল রঞ্জি ট্রফিতে প্রথম ম্যাচ। শুভমনের চাপে ফেলে নিজের সিদ্ধান্ত ফিরিয়ে নিয়ে তিনি ফের তাঁকে ব্যাটিং-এর সুযোগ দেন। 

এর পরে শুরু হয় আর একপ্রস্থ নাটক। শুভমনকে ব্যাটিং করতে দেওয়ার প্রতিবাদে দল নিয়ে মাঠ ছাড়েন দিল্লি অধিনায়ক নীতিশ রানা। এর পর বেশ কিছুক্ষণ খেলা বন্ধ থাকার পর ম্যাচ রেফারির হস্তক্ষেপে ফের খেলা শুরু হয়। যদিও, শুভমন বেশিক্ষণ টেকেননি। ৪১ বলে ২৩ রান করে সিমরজিৎ সিং-এর বলে আউট হয়ে যান শুভমন। যদিও তাঁর এই অক্রিকেটীয় আচরণের বিরুদ্ধে বিসিসিআই কোনও পদক্ষেপ করে কি না, সেটাই এখন দেখার।