বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার কয়েকদিনের মধ্যেই জানিয়েছিলেন তাঁর এই স্বপ্নের কথা - প্রতিবছর ভারত, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও আরও একটি প্রথম সারির ক্রিকেট খেলিয়ে দেশ-কে নিয়ে চার দেশিয় টুর্নামেন্ট। এবার সেই স্বপ্ন সাকার করতে ইংল্যান্ড পারি দিলেন দাদা। বোর্ডের সূত্রে জানানো হয়েছে, সেখানে ইসিবি-র কর্তাদের সঙ্গে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের প্রস্তাবিত চার দেশিয় টুর্নামেন্ট নিয়ে আলোচনা হবে। সেখানে যোগ দিতে আসতে পারে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রতিনিধিরাও।

বিসিসিআই কর্তারা ইতিমধ্যেই ইসিবি ও সিএ-র কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে দাদার প্রস্তাবিত এই টুর্নামেন্ট-এর প্রস্তাব দিয়েছেন। গত ডিসেম্বরেই ইসিবি কর্তারা জানিয়েছিলেন, তাঁদের সঙ্গে বৈঠকে বিসিসিআই-এর পক্ষ থেকে এই রকম একটি প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে এবং তারা এই টুর্নামেন্ট নিয়ে আরও আলোচনায় আগ্রহী। সূত্রের খবর, এবার এই চার-দেশিয় টুর্নামেন্ট কীভাবে খেলা হবে এবং ভবিষ্যতের আইসিসি-র ট্যুর প্রোগ্রাম-এর সঙ্গে কীভাবে তাকে খাপ খাওয়ানো যাবে - এইসব বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে।

এই বিষয়ে দাদার উদ্ভাবনী ক্রিকেট মস্তিষ্কের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চিফ এক্সিকিউটিভ কেভিন ররবার্টস। তাঁর মতে এই টুর্নামেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্য়ায়ের নেতৃত্বাধীন নতুন ভারতীয় বোর্ডের উদ্ভাবনী চিন্তাভাবনার একটি উদাহরণ। অল্প সময়ের মধ্যেই এই বোর্ড কলকাতায় একটি ডে-নাইট টেস্ট আয়োজন করে দেখিয়ে দিয়েছে, তারা শুধু মুখে কথা নয়, কাজে করে দেখাতে পারে। কাজেই যে সুপার সুপার সিরিজের পরামর্শ এসেছে সেটিও সম্ভাবনাময় হবে বলেই মনে করচেন তিনি।

ইসিবি এবং সিএ দুই পক্ষই দাদার প্রস্তাবিত এই টুর্নামেন্ট নিয়ে ইতিবাচক হলেও, বেঁচে বসতে পারে আইসিসি। প্রস্তাবিত টুর্নামেন্টটিতে তিনটির বেশি দল জড়িত তাই আইসিসি-র অনুমোদন প্রয়োজন। আইসিসি আবার আগামী আট বছর ধরে বছরে একটি করে আইসিসি টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে আগ্রহী। এতে মত নেই বিসিসিআই-এর। এই নিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থার সঙ্গে ভারতীয় বোর্ডের সরাসরি বিরোধ তৈরি হয়েছে। তারমধ্যে এই চারদেশিয় টুর্নামেন্টের প্রস্তাব আইসিসি কতটা মেনে নেবে তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।