শুক্রবার সিএসকে শিবিরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন দলের ১৩ জন সদস্য। তারমধ্যে ছিলেন দলের তারকা পেসার দীপক চাহারও। তারপরই আক্রান্ত হব দলের ব্যাটসম্যান ঋতুরাজ গায়কোয়াড়। শনিবার সকালে আইপিএল থেকে নিজের নাম তুলে নেন সিএসকের অন্যতম তারকা ব্যাটসম্যান সুরেশ রায়। ব্যাক্তিগত কারণে তিনি আইপিএল না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানানো হয় দলের তরফে। কিন্তু যে রায়না আইপিএল কেলার জন্য উদগ্রীব হয়ে ছিলেন, সেই রায়না হঠাৎ কেনও আইপিএল না খেলার সিদ্ধান্ত নিলেন তা নিয়ে ওঠে। প্রশ্ন। অনেকেই বলছিলেন করোনা আতঙ্কেই আইপিএল না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রায়না। কিন্তু অবশেষে জানা গেল রায়নার আইপিএল না খেলার কারণ।

এমন তাড়াহুড়ো করে রায়নার দেশে ফেরার কারণ হিসেবে জানা গিয়েছে, পাঠানকোটে রায়নার কাকার বাড়িতে জঙ্গী হামলা হয়েছে। যাতে প্রাণ গিয়েছে রায়নার কাকার। অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক রায়নার পিসির। পাঠানকোটের থারিয়াল গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন আক্রান্তরা। রাতে বাড়িতে হঠাৎই হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। সেই সময় বাড়ির ছাদে ঘুমোচ্ছিলেন পিসি-পিসেমশাই ও তাঁদের সন্তানরা। তখনই ধারাল অস্ত্র দিয়ে তাঁদের উপর আক্রমণ করে দুষ্কৃতীরা। ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান রায়নার পিসেমশাই অশোক কুমার। হামলায় গুরুতর আঘাত প্রাপ্ত হন রায়নার পিসিও। বর্তমানে তিনি জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন। আহত হয়েছেন রায়নার দুই ভাই ও তাদের ঠাকুমাও। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিস। 

শনিবার সকালে হঠাৎ সুরেশ রা.না জানান তিনি আইপিএল খেলবেন না। চেন্নাইয়ের তরফে সিইও কাসি বিশ্বনাথন সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজ্ঞপ্তি জারি করে রায়নার ভারতে ফেরার কথা জানিয়ে দেন। শনিবার সকালে সিএসকের টুইটার হ্যান্ডেলে এক বিজ্ঞপ্তিতে চেন্নাই সিএও জানান, 'ব্যক্তিগত কারণে সুরেশ রায়না ভারতে ফিরে গিয়েছেন এবং বাকি আইপিএল মরশুমে তাঁকে পাওয়া যাবে না। এমন পরিস্থিতিতে রায়না ও তাঁর পরিবারের প্রতি চেন্নাই সুপার কিংসের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।' এবার বোঝা গেল পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর জন্যই দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সুরেশ রায়না।