একাধিক নামী কোম্পানি দৌড়ে থাকলেও, অবশেষে আইপিএলের টাইটেল স্পনরশিপের লড়াইয়ে বাজি মারল ড্রিম ইলেভেন। বিসিসিআইয়েপ থেকে  আগেই জানানো হয়েছিল ১৮ অগাস্ট ঘোষণা করা হবে আইপিএলের নতুন টাইটেল স্পনসরের নাম। সব প্রতীক্ষার অবান ঘটিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড জানিয়ে দুল ভিভোর বদলে আইপিএলে নতুন টাইটেল স্পনসর হল ড্রিম ইলেভেন। তিন বছরের জন্য বিসিসিআইয়ের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হল সংস্থাটি। অবশেষে আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ঘোষণা হয়ে যায় চাপ কমল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের।

গালোয়ান উপত্যকায় ভারত-চিন সংঘর্ষের পর থেকেই দেশ জুড়ে চিনা দ্রব্য বর্জনের ডাক ওঠে। ৫৯টি চিনা অ্যাপ ভারতে নিষিদ্ধ করে কেন্দ্রীয় সরকারও। তার পর থেকেই আইপিএলের টাইটেল স্পনসর চিনা মোবাইল প্রস্তুতকারী সংস্থা ভিভোকে আইপিএল থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি ওঠে। ইবশেষে জেশজুড়ে চাপের কাছে নতি স্বীকার করে বিসিসিআই। ভিভোর সঙ্গে এবছরের মত চুক্তি বিচ্ছেদ করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। ভিভোর বিদায়ের পর প্রাথমিকভাবে মূল স্পনসর হওয়ার দৌড়ে সামিল হয়েছিল টাটা সনস, রিলায়েন্স জিয়ো, পতঞ্জলি, বাইজু'স, আনঅ্যাকাডেমি এবং ড্রিম ইলেভেন। সেই দৌড়ে কিছুটা এগিয়েছিল টাটা সনস। যদিও শেষপর্যন্ত চূড়ান্ত বিড থেকে টাটা সনস সরে দাঁড়ায়। ২০১ কোটি টাকার বিড করেছিল বাইজু'স। আনঅ্যাকাডেমির তরফে ১৭০ কোটি টাকার চুক্তির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষপর্যন্ত সেই দৌড়ে বাজিমাত করে ড্রিম ১১। সাড়ে চার মাসের জন্য ২২২ কোটি টাকার চুক্তি হয়েছে। 

মাত্র সাড়ে চার মাসের জন্য অনলাোইন গেমিং সংস্থার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বিসিসিআই। যার জন্য ২২২ কোটি টাকা দিচ্ছে ড্রিম ইলেভেন। যদিও বিসিসিআইয়ের প্রাথমিকভাবে লক্ষ্য ছিল আরও বেশি টাকার চুক্তি করা। কারণ ভিভোর সঙ্গে চুক্তির অঙ্কের কমপক্ষে ৭৫ শতাংশ তুলে নিতে চেয়েছিল বোর্ড। যে সংস্থার সঙ্গে বোর্ডের বার্ষিক ৪৪০ কোটি টাকার চুক্তি হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা না হওয়ায় ২২২ কোটি টাকার চু্ক্তিতেই খুশি ভারতের একমাত্র কোটিপতি লিগের কর্তারা। সব মিলে এবারের আইপিএলের টাইটেল স্পনসরের নাম ড্রিম ইলেভেন।