রবিবার ইংল্যান্ড ম্যাচে বিজয় শঙ্করের বদলে প্রথম এগারোয় দেখা যাবে ঋষভ পন্থকে? অধিনায়ক বিরাট কোহলির কথা যদি কোনও ইঙ্গিত হয়, তাহলে বিশ্বকাপে অভিষেকের জন্য আরও অপেক্ষা করতে হবে দিল্লির কিপার ব্যাটসম্যানকে। ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে ভারত অধিনায়ক স্পষ্ট বুঝিয়ে দিয়েছেন, আপাতত শঙ্করের উপরেই ভরসা রাখছে দল। বিরাট কোহলি জানিয়ে দিয়েছেন, খুব শিগগিরই দলের হয়ে ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলবেন শঙ্কর। 

এ বারের বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে এখনও পর্যন্ত বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ অলরাউন্ডার বিজয় শঙ্কর। তার পরেও চার নম্বরে তাঁকেই খেলাচ্ছে দল। বিশেষজ্ঞরা অনেকেই বলেছেন, বিজয় শঙ্করের বদলে অবিলম্বে ঋষভ পন্থকে খেলানো উচিত ভারতের। চোটের কারণে শিখর ধাওয়ান ছিটকে যাওয়ার পরে দলে আসেন পন্থ। কিন্তু প্রথম এগারোয় সুযোগ পাননি তিনি। ধাওয়ানের বদলে রোহিত শর্মার সঙ্গে ওপেন করছেন কে এল রাহুল। আর বিজয় শঙ্কর খেলছেন চার নম্বরে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত মিডসল অর্ডারে নির্ভরতা দিতে ব্যর্থ তিনি। 

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে শঙ্করের ব্যাটিং নিয়ে বলতে গিয়ে কোহলি বলেন, 'বিজয় শঙ্করকে নিয়ে প্রশ্ন ওঠাটা বেশ অদ্ভুত। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যথেষ্ট ভাল খেলেছে ও। আফগানিস্তান ম্যাচেও কঠিন পিচে ওকে দেখে নির্ভরযোগ্যই মনে হয়েছে। ওই ম্যাচের শট নির্বাচন নিয়ে আমরা ওর সঙ্গে কথা বলেছি। গত ম্যাচেও ও যথেষ্ট ভাল ব্যাটিং করছিল, কিন্তু কেমার রোচের একটা অসাধারণ বলে আউট হয়ে যায়।'

আফগানিস্তান ম্যাচে ২৯ রান করেছিলেন শঙ্কর। বিরাট কোহলির সঙ্গে জুটি বেঁধে পঞ্চাশ রানের উপরে তোলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত যা ভারতের রান দুশো পার করতে অনেকটাই সাহায্য করেছিল। 

কোহলি আরও বলেন, 'সব কিছু নিয়ে খুব বেশি প্রশ্ন তোলার দরকার নেই। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, ওকে যথেষ্ট নির্ভরযোগ্য লাগছে। ক্রিকেটে এক একসময় ৩০ রানকে ৬০ রানে পরিণত করতে ভাগ্যের সাহায্য লাগে। আর সেটা হলেই ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলা যায়। আমার মনে হয় শঙ্কর সেরকমই একটা ইনিংস খেলার কাছাকাছি জায়গায় চলে এসেছে। আমরা এ বিষয়ে খুবই আত্মবিশ্বাসী।'

অলরাউন্ডার বলেই অম্বাতি রায়ডুকে টপকে বিশ্বকাপ দলে জায়গা করে নিয়েছিলেন শঙ্কর। বল হাতে পাকিস্তান ম্যাচেও ভাল পারফর্ম করেন তিনি। এখন দেখার ব্যাট হাতে জ্বলে উঠে এবার অধিনায়কের আস্থার মর্যাদা তিনি দিতে পারেন কি না। 

বিশ্বকাপে রবিবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাঠে নামছে ভারত। বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে যে ম্যাচে না জিতলে শেষ চারে যাওয়ার আশা এক রকম শেষ হয়ে যাবে ইংরেজদের। ফলে কোহলিদের জন্য রবিবার আরও একটি কঠিন চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে।