হ্যাটট্রিক আগেই হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু তার পরেও রানের খিদে মেটেনি বিরাট কোহলির। কারণ এক নম্বর জায়গাটা সহজে ছাড়তে নারাজ তিনি। রবিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ- এর বিরুদ্ধে সিরিজের নির্ণায়ক ম্যাচে ৮৫ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলার সঙ্গে সঙ্গেই ২০১৯-এ ব্যক্তিগত আরও একটি নজির গড়ে ফেললেন ভারত অধিনায়ক। এই নিয়ে পর পর চার বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এক বছরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহক হলেন তিনি। 

এ বছর অবশ্য বিরাটকে কড়া চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন তাঁরই সতীর্থ এবং ডেপুটি রোহিত শর্মা। বছরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী ব্যাটসম্যান হিসেবে গত কয়েক দিনে বার বার এক এবং দুই নম্বর স্থানে ঘোরাফেরা করেছেন এই দু'জন। তুল্যমূল্য লড়াইয়ের পর শেষ হাসি অবশ্য বিরাটই হাসলেন।

২০১৬ সাল থেকেই এই কৃতিত্ব নিজের দখলে রেখেছেন বিরাট। সেবছর টেস্ট, ওয়ান ডে এবং টি টোয়েন্টি মিলিয়ে এক বছরে ২৫৯৫ রান করেন বিরাট। ২০১৭ এবং ২০১৮ মরশুমে যথাক্রমে ২৮১৮ এবং ২৭৩৫ রান করেন তিনি। আর চলতি বছরে ২৪৫৫ রান করে বছরটা শেষ করলেন তিনি।

রবিবার কটকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে বিরাট যখন ব্যক্তিগত ৭৩ রানে পৌঁছন, তখনই রোহিতকে টপকে চলতি বছরের জন্য এই কৃতিত্বব স্পর্শ করেন তিনি। এই ম্যাচের আগে রোহিত বিরাটের থেকে ৯ রানে এগিয়ে ছিলেন। এ দিনও ওপেন করতে নেমে ৬৩ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন হিটম্যান। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে তাঁকেও ছাপিয়ে যান বিরাট। রোহিত- বিরাটের এই ডুয়েলে অবশ্য সবথেকে লাভবান হচ্ছে টিম ইন্ডিয়া।

তবে বিরাটের কাছে চলতি বছরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের দৌড়ে হারতে হলেও রোহিত নিজেও দু'টি নজির স্পর্শ করেন। ২০১৯ সালে একদিনের ক্রিকেটে সাতটি শতরান সহ ১৪৯০ রান করেছেন রোহিত। যা এ বছর পঞ্চাশ ওভারের ক্রিকেটে সর্বোচ্চ। এছাড়াও ওপেনার হিসেবে শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি সনৎ জয়সূর্যের রেকর্ড ভেঙে এক ক্যালেন্ডার বছরে সর্বোচ্চ ২৪৪২ রান করেছেন রোহিত। ২২ বছর আগে ১৯৯৭ সালে এক বছরে ২৩৮৭ রান করে এই নজির গড়েছিলেন জয়সূর্য।