করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে চতুর্থ দফার লকডাউন। কিন্তু লকডাউনের ফলে পরিযায়ী শ্রমিকদের সমস্যার কথা আমাদের সকলের জানা। সব কিছু বন্ধ থাকায় নিজের ঘরে পৌছতে মাইলের পর মাইল হাঁটছেন তারা। অভুক্ত অবস্থায় হেঁটে চলেছেন তারা। কেউ গন্তব্যে পৌছচ্ছেন , কারও আবার মাঝ রাস্তাতেই শেষ হয়ে যাচ্ছে পথ চলা। পরিযায়ী শ্রমিকদের অবস্থা দেখে শিফড়ে উঠেছিল গোটা দেশ। যদিও বর্তমানে সরকারি উদ্যোগে ট্রেনে বা বাসে শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারপর পরিযায়ী শ্রমিক তথা লকডাউনের জেরে দুঃস্থদের পাশে দাঁড়াতে এবার এগিয়ে এলেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দ্র সেওয়াগ। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষের পেটের জ্বালা মেটাচ্ছেন বীরু ও তার ফাইন্ডেশন।

আরও পড়ুনঃঅ্যাকাউন্ট হ্যাক করে লাইক করা হল পর্ণ ভিডিও,অপমানে সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়লেন ওয়াকার ইউনিস

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন বীরেন্দ্র সেওয়াগ, বলেছিলেন বিপদের দিন ঘরে থেকে অভুক্তদের খাওয়ানোর ব্যবস্থা করুণ। সাধ্য মত যতটা সম্ভব খাওয়ার রান্না করে তার ফাউন্ডেশনের সঙ্গে যোগাযোগ করুণ, তারাই সেই খাওয়ার পৌছে দেবে অভুক্ত,দুঃস্থদের কাছে। নিজের লক্ষ্য পরিষ্কার করেোছিলেন সেওয়াগ। দেশের সংকটের দিনে কেউ জানো অভুক্ত না থাকে তা নিশ্চিত করতেই এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার।

 

 

আরও পড়ুনঃঝুলে রইল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভাগ্য,১০ জুনের পর সিদ্ধান্ত নেবে আইসিসি

আরও পড়ুনঃজাপানি অ্যাপের মাধ্যমে ঘরে বসেই স্টেডিয়ামের আমেজ,আপনার কথা পৌছে যাবে প্লেয়ারদের কানে

শুধু অন্যদের উৎসাহ দিয়েই ক্ষান্ত থাকেননি বীরেন্দ্র সেওয়াগ। নিজেও প্রতিদিন অসংখ্য পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য খাওয়ার বন্দোবস্ত  করছেন। সেওয়াগের পরিবারের সদস্যরাও তাকে সাহায্য করছেন সেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ছবিও পোস্ট করেছেন বীরু। পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য প্রতিদিন রান্না করা খাবার প্যাক করে পাঠাচ্ছেন তিনি। এ কাজে তাঁকে সাহায্য করছে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। প্যাক করা খাবার সেইসব সংস্থার কর্মীরাই পৌঁছে দিচ্ছেন পরিযায়ী শ্রমিক, গরিব-দুস্থদের কাছে। অর্থাৎ লকডাউনের বিধি মেনে বাড়িতে বসেই দেশসেবা করতে পারছেন বীরু। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করে সেওয়াগ লিখেছেন,'বাড়িতে বসে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য খাবার তৈরি করার তৃপ্তিটা অন্যরকম। তাঁদের কাছে খাবার পৌঁছে দিতে পেরে ভাল লাগছে। আপনারাও এগিয়ে আসুন।' বীরেন্দ্র সেওয়াগের এই কাজকে কুর্ণিশ জানিয়েছেন একদা তার সতীর্থ হরভজন সিং। ভাজ্জি লিখেছেন,'দারুণ কাজ করছ। খুবই ভাল উদ্যোগ।'

 

;