বিশ্বকাপ ২০১৯-এর সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে হেরে বিদায় ছিটকে গিয়েছিল ভারত। তারপর ফের ওয়েস্টইন্ডিজ সফর দিয়ে ভারত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে। কিন্তু, বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর নতুন করে ক্রিকেট শুরু করাটা সহজ কথা নয়। তবে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি জানিয়েছেন, জীবনের প্রতিটা ধাক্কাই তাঁণকেক্রিকেটার হিসেবে উন্নত করেছে।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন, জীবনে ব্যর্থতা থেকেই তিনি বরাবর শিক্ষা নিয়েছেন। চরম ব্যর্থতা তাঁকে অনুপ্রেরণা জোগায়। শুধু তাই নয়, মানুষ হিসেবেও আরও উন্নত করে তোলে বলে দাবি করেছেন তিনি। ফেল সাফল্যের সময়ের থেকে ব্যর্থতার সময়ের গুরুত্ব তাঁর কাছে অনেক বেশি।

ব্যর্থতা তাঁকে বসে ভাবতে বাধ্য করে কোথায় ভুল হয়েছিল। কী করতে হবে, আগামী দিনের রোডম্যাপ তৈরি করতে সাহায্য করে। এছাড়া ব্যর্থতার সময়ই প্রকৃত বন্ধুদের চিনে নেওয়া যায় বলেও জানিয়েছেন বিরাট। কারণ ব্যর্থতার সময় যাঁরা পাশে দাঁড়ান, তাঁরাই প্রকৃত বন্ধু।

তবে ভারতের বিশ্বকাপের স্বপ্ন ভঙ্গ হওয়ার পর সেই ব্যর্থতাটা মেনে নিতে বেশ সমস্যাই হচ্ছে বিরাটের। কারণ তাঁর মতে ভারত সেই অর্থে ভুল কিছু করেনি। সেমিফাইনালের আগের ম্যচগুলিই তার প্রমাণ। এমনকী সেমিফাইনালেও তারা ভালই খেলেছেন বলে দাবি বিরাটের। কিন্তু নিউজিল্যান্ড তাঁদের থেকে বেশই ভাল খেলেই হারিয়েছে। কাজেই এই ব্যর্থতাটা মেনে নেওয়া বেশ কঠিন।