বাঙালি সবথেকে বেশি সব থেকে সুখ পায় যাতে , তা হল পেট-পুজো। আর এই সারা বছরের মধ্যে বোধহয় দুর্গা পুজোতেই সবথেকে বেশি পেট-পুজো হয়। পুজোর দিন গুলিতে খুব ভোরে বাজারে গিয়ে কানকো দেখে মাছ কেনা কিংবা তাজা সব্জি  কিনে বাড়ি ফিরে যেনও স্বর্গ সুখ পায়। তবে হ্যাঁ মাছের ক্ষেত্রে ফসফরাস কিংবা পটলের  ক্ষেত্রে কপার সালফেটের জলীয় দ্রবণে যে তাজা দেখানোর নকল আদর টা চলে , তা নিয়ে বাঙালির কোনও মাথা ব্যাথা নেই।অবশ্য একটা ভালো জিনিস বাঙালি করে । সেটা জেনে কিংবা না জেনে , গরম জলে ভাল করে ধোয়া।তাতেই অবশ্য  ভেজালের সব  বিষ বেরিয়ে যায়। আর শেষটায়  শুধু  জিভে স্বাদ পেলেই হল। তারপর আর তাদের কে আর পায় কে, একেবারে দুপুর গড়িয়ে রাত করে দেবে,কত ভালো খেয়েছে তার প্রশংসায়।আর এই জন্যেই কিন্তু  বাঙালি , রান্নাঘর টা খুব সুন্দর করে বানায়। তবে এত কিছুর পরও কিন্তু একটা জিনিস বাকি থাকে। সেটা হল ,রান্না ঘরের বাস্তু তন্ত্র। স্মার্ট বাঙালি সেটা জানতে পারলে অবশ্যই তার কদরও করবে ।তাহলে জেনে নেওয়া যাক রান্না ঘরের বাস্তু তন্ত্রের খুতিনাটি নিয়মগুলি-  

  আরও পড়ুন, জেনে নিন দুর্গা পুজোয় কীভাবে বাড়িতে করবেন মঙ্গল ঘট স্থাপন

১। রান্নাঘরের জলের উৎস বা কলের পয়েন্ট এর সবচেয়ে ভালো দিক হল  উত্তর- পূর্ব দিক। 

বিকল্প: যদি আপনার এই  কোনও জলের পয়েন্ট না থাকে সেক্ষেত্রে  উত্তর- পশ্চিম দিক মুখ করে আপনি একটি জলের পাত্র বা আধার রাখুন।  

২। আগুন জ্বালানো বা গ্যাস ওভেন রাখার  উত্তম দিক হল- পূর্ব-দক্ষিণ দিক।অগ্নি দেবতা এদিকে থাকলেই ঘরে শান্তি ফিরে আসে। 

আরও পড়ুন, পুজো আসছে, জীবনটাকে আরও সুন্দর করতে মেনে চলুন এই বাস্তুর এই নিয়মগুলি

বিকল্প: এমনটা হতেই পারে আপানার রান্নাঘরের পূর্ব-দক্ষিণ দিকটা পুরো বন্ধ।ঐ দিকে আগুন জ্বালানো বা গ্যাস ওভেন রাখার কোনও উপায় নেই।সেক্ষেত্রে আপনি একটি কারেন্টের প্লাগ পয়েন্ট বানান।সেখানে একটি লাল রঙের ছোট বাল্ব বা ইনডিকেটর জ্বালিয়ে রাখুন। যদি এটাও সম্ভব
না হয় তাহলে লাল রঙের কোনও কিছু পাতিয়ে রাখুন। অবশ্যই সেটা যেনও কোনও দাহ্য পদার্থ না হয়।  

৩। রান্না ঘরের জানালা যদি পূর্ব দিকে থাকে তাহলে খুব ভালো হয়, সূর্যদয়ের প্রথম রশ্মি খাবারের যাবতীয় জীবাণু কাটিয়ে দেয়। রান্নাঘরের আবহাওয়া কে পজিটিভ এনার্জি তে ভরপুর করে রাখে। 

বিকল্প: যদি আপনার রান্না ঘরের জানালা পূর্বদিকে  না থাকে,সেক্ষেত্রে আপনি  পূর্বদিকে একটি ভেন্টিলেটর বসাতে পারেন। 

আরও পড়ুন, শারদীয়ার প্রাক্কালে মেনে চলুন এই বাস্তুর এই নিয়মগুলি
   
আশা করা যায়, রান্না ঘরের বাস্তু তন্ত্রের এই নিয়ম গুলির মধ্যে দিয়েই আপনার ঘরে শান্তি ফিরবে। যাই খাবেন তার সবটাই শরীরে লাগবে। আগের থেকে নিজেকে অনেকটাই সুস্থ মনে করবেন নিজেকে।  

৪।  রান্না ঘরে যদি কোনও ছবি টানাতে চান , তাহলে দেবী অন্নপূর্ণার ছবি রাখাই মঙ্গলজনক।