বেহালার বরিশা ক্লাব দুর্গাপুজো এবার একেবারেই অন্যভাবে উমা মাকে স্বাগত জানাতে চান। করোনা আবহে পরিযায়ী শ্রমিককে সম্মান জানিয়েই এবার তাঁদের দুর্গা দর্শন করবেন দর্শনার্থীরা। চলে আসা প্রথার বাইরে গিয়ে  ভাষ্কর্যের মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলেছেন এক মহিলা পরিযায়ী শ্রমিককে। আর এবার তাঁকেই পুজো করবে বেহালার বরিশা ক্লাব।

আরও পড়ুন, করোনা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কাদের সবচেয়ে বেশি, জানুন কী বলছেন গবেষকরা


 মহিলা পরিযায়ী শ্রমিকই হলেন এবার মা দুর্গা


 মহিলা পরিযায়ী শ্রমিকের কপালে ত্রিনয়নী। কোলে পুত্র সন্তান। সেই কি কার্তিক। উত্তর পাওয়া যাবে দর্শনেই। নীচে দাড়িয়ে তাঁর দুই মেয়ে। যাদের কোল দেখলে চেনা যাবে তাঁদের আসল পরিচয়। একজনের কোলে পেঁচা এবং অপরজনের কোলে হাঁস। দেবী এবং তাঁর সন্তানেরা এভাবেই করোনা পরিস্থিতির মধ্যে পরিযায়ী শ্রমিকের মধ্যে বিরাজমান। কেবলমাত্র  মহিলা পরিযায়ী শ্রমিক রুপে দেবী দুর্গা আপনার চোখের দিকে তাঁকাবে। তাঁর সন্তানেরা তখন ভূমির দিকে নিবিষ্ট চোখে চেয়ে আছে। আর তাঁর মাথার পিছনে ফুঁটে উঠেছে দশটা হাত।

আরও পড়ুন, বন্ধ ঘর থেকে আসছিল দুর্গন্ধ, দোতালায় উঠতেই থমকে দাঁড়াল পাটুলি থানার পুলিশ

 

হার না মানা উমা মা এবার বিরাজমান বরিশা ক্লাবে

করোনা মহামারি, লকডাউনে মাসের পর মাস বাড়ি ফিরতে না পারা, না খাওয়া দাওয়া অবস্থায় লড়াই করে গেছে  আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকরা। তবু হার মানেননি। মহিলা পরিযায়ী শ্রমিককে এভাবেই সম্মান জানিয়েছেন চলতি বছরের দুর্গা পুজোয়  বেহালার বরিশা ক্লাব।