দিন কয়েক আগেই প্রাণ সং শয়ের কথা গণমাধ্যমের সামনে তুলে ধরেছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। ঠিক ইন্দিরা গান্ধীর মডেলে খুন করা হতে পারে তাঁকে হয়তো দেহরক্ষীই প্রাণ নেবে, এমনই আশঙ্কা ছিল তাঁর।

এবার আরও একধাপ উঠে কেজরিওয়াল জানিয়ে দিলেম কোনও দেহরক্ষী নয়, তার প্রাণ নিতে পারে খোদ নরেন্দ্র মোদী তথা তার দল ভারতীয় জনতা পার্টি।  

শনিবার কেজরিওয়াল এহেন বিবৃতি দেওয়ার পরে সোমবার  বিজেপি নেতা বিজয় গোয়েল বলেছিলেন, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল যদি মনে করেন নিজের প্রাণ সংশয় রয়েছে তাহলে তিনি তাঁর পছন্দের নিরাপত্তারক্ষী বেছে নিতে পারেন।  তারই উত্তরের সোমবার কেজরিওয়াল বললেন নিরাপত্তারক্ষী নয় বরং তার ভয় দেশের প্রধানমন্ত্রীকে। "মোদীজি আমায় হত্যা করতে পারেন", এমনটাই লিখে ট্যুইট করেন কেজরি । 

পঞ্জাবের একটি নিউজ চ্যানেলকে গত শনিবার কেজরিওয়াল বলেছিলেন, আমাকে মেরে ফেলতে চাইছে গেরুয়াবাহিনী। সেই জন্য ইন্দিরা গাঁধীর মডেলে আমাকে দেহরক্ষী দিয়ে খুন করানো হতে পারে। তখন তাঁর এই অভিযোগের বিরুদ্ধে আঙ্গুল তুলে ছিলেন বিজেপি নেতা বিজয় গোয়েল। তাঁর মতে ,নিরাপত্তারক্ষীদের নিয়ে সংশয় প্রকাশ করা মান নিয়ে দিল্লি পুলিশের ওপর আস্থা হারানো।

এরই উত্তর ফিরিয়ে দেন কেজরিওয়াল। বলেন স্বয়ং নরেন্দ্র মোদি তাঁকে হত্যা করতে চাইছেন। প্রসঙ্গত কেজরিওয়াল মুখ্যমন্ত্রী আসার পর তার উপর কম অত্যাচার হয়নি। দেহরক্ষী থাকা সত্বেও বারবার আক্রমণ নেমে আসে এসেছে তার ওপরে। কাজের নিরাপত্তা সংক্রান্ত তাঁর ভীতি একেবারে অমূলক নয়।