হাতে রয়োছ মাত্র কয়েক ঘণ্টা। তাকে মরিয়া হয়ে ব্যবহার করছে যুযুধান দুই পক্ষই। নরেন্দ্র মোদী কলকাতা ও দমদমে দুটি সভা করছেন, আর মমতার প্রচার কর্মসূচি চারটি। তার মধ্যেই চলছে একে অপরকে ফোরহ্যান্ড, ব্যাকহ্যান্ড মারা।

এদিন চারটি প্রচার পরিকল্পনা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। প্রথম জনসভাটি  মথুরাপুরে দুপুর একটায়। পরের জনসভাটি  ডায়মন্ডবারবারে দুপুর ২টোয়। দুপুর ৩টেয় জোকা বাসস্ট্যান্ড পপদযাত্রা করবেন মমতা। পরের পদযাত্রাটি হবে সুকান্ত সেতুতে।

এই সভা দুটি থেকেই আক্রমণ শানালেন মমতা। জবাব দিলেন মোদীর কথার । এদিন সকালেই মোদী উত্তরপ্রদেশ থেকে বলেছিলেন পঞ্চধাতুর বিদ্যাসাগর মূর্তি বানাতে চান। এই অভিপ্রায়ে জল ঢেলে দিলেন মমতা, দিলেন কড়া জবাব।

দেখে নেওয়া যাক মূর্তি প্রসঙ্গে ঠিক কী বললেন মমতাঃ

১ আমাদের বিদ্যাসাগরের স্ট্যাচু ভেঙে দিয়ে যে গুন্ডামি করেছেন, আগামী দিনে তার জবাব দিতে হবে।

২ বাংলার টাকা আছে এই মূর্তি বানানোর। মিথ্যেবাদী প্রাইম মিনিস্টার বলেছেন এই মূর্তি পের বানিয়ে দেবেন। হেরিটেজ কী ফেরানো যায়? 

৩ স্ট্যাচু ভাঙা বিজেপির অভ্যেস।

৪ বাবাসাহেব আম্বেদকরের মূর্তি ভেঙে ফের বানিয়ে দিলে হয় না, গাঁধীর মূর্তি ভেঙে বানিয়ে দিলে হয় না। রবীন্দ্রনাথের মূর্তি ভেঙে ফের বানানো যায় না। 

৫ তোমায় আমরা জেলে টানব। ডকুমেন্টস উইল স্পিক।

৫ তোমার কাছে বাংলা ভিক্ষে চায় না।  আমাদের বাংলাকে তোমরা কাংলা বলেছে অমিত শাহ। বাংলার মানুষ বিজেপি করবে না।

৬ ১২ হাজার কৃষক আত্মহত্যা করেছে এই আ্মলে। এলপিজি গ্যাসের দাম চারশো থেকে হাজার হয়েছে।

৭ এখানেও দুএকজন আরএসএস করেছে। দাঙ্গা ওদের শেষ অস্ত্র। এদেরক নজরে রাখুন। এরা মৌলবাদী, উগ্রবাদী।

৮ ফেসবুকে বিজেপি ফেক ভিডিও ছড়াচ্ছে দাঙ্গা লাগাতে।

৯ এই মিটিংটা করছি অনুমতি নিয়ে করছি। আজ মোদী যে মাঠে সভা করথে সেটা কপিল মন্ডলের। মাইক্রো ফাইন্যান্সের ব্যবসা করে সে লাইসেন্স ছাড়া। আমি ওদের বিরুদ্ধে কেস স্টার্ট করব।


১০ কুলপিতে আমরা ৩০০০ কোটি টাকা খরচ করে বন্দর করেছি। সেখানে ১০০০০ ছেলেমেয়ের চাকরি হবে।

১১ ইভিএমের চারপাশে থাকবেন। অপরিচিত জল দিলেও খাবেন না। আট ঘণ্টা আট ঘণ্টা করে ডিউটি দেবেন।

১২ আসামে ২২ লক্ষ হিন্দু বাঙালিকে বাদ দিয়েছে। গণতন্ত্র কেড়ে নিয়েছে।

ডায়মন্ডহারবারে মমতার সভার এক ঝলক


১ বিদ্যাসাগর নারী শিক্ষার উন্নয়ন করেছিলেন। তিনি আমাদের পিতা। এটা বিদ্যাসাগরের ২০০ বছর। আমার মনে মনে ঘৃণা হচ্ছে। যারা এখন বিদ্যাসাগরের মূর্তি বানাবেন বলেছেন, তাদের টাকা নিই না। বরং একটা ফ্যাসিস্টের কালো মূর্তি আমরা বানাব। 

২ দেশের প্রধানমন্ত্রী রামচন্দ্রের কথা মনে করেন ভোট এলেই। 

৩ তোমরা বাংলাকে কাংলা বলছে। বাঙালি কাঙালি?  আগামী দিন তোমাদের ঔদ্ধত্যকে স্তব্ধ করে দেবে বাঙালি মা বোনেরা।

৪ মা বোনেদের স্বাস্থ্যসাথী স্মার্টকার্ড পাবেন।

ডায়মন্ডহারবারে মমতার মনোনয়ন তাঁর নিজের ভাইপো, মথুরাপুরে চৌধুরীমোহন জটুয়া। দু'জনেই 
বিজিত প্রার্থী। তবে অভিষেকে নিয়ে যথেষ্ট চিন্তা রয়েছে তৃণমূলের অন্দরে। মমতার শেষ দুই সভা এই দুই আসনেই যে তৃণমূলকে চাগিয়ে দেবে তা বলাই বাহুল্য।